ঢাকা ০৩:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে বৃদ্ধার রহস্যজনক মৃত্যু

এস. এম ইকবাল : চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে ৭৫ বছর বয়সি এক বৃদ্ধার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের লোকজন বলছেন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তবে ওই বৃদ্ধার মৃত্যুকে রহস্যজনক দাবী করছেন এলাকাবাসী। আত্মহত্যার সংবাদ পেয়ে ফরিদগঞ্জ থানার এস.আই মো. ওবায়েদ উল্লাহ নয়ন ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।
১২ ডিসেম্বর সোমবার সকালে উপজেলার গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের শ্রী-কালিয়া এলাকার মিজি বাড়ির বৃদ্ধা মো. শফিক মিজি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে দ্বাবী করছেন তার বড় ছেলে শাহাদাত হোসেন।
পরিবার সূত্রে জানাযায়, শফিকুর রহমান মানষিক ভারসাম্যহীন ছিলেন,  প্রায়ই তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করতো। শফিকুর রহমান সকালে ঘুম থেকে উঠে পরিবারের সকলের অগোচরে কখন ফাঁস দিয়েছে আমরা জানতাম না।তবে শফিকুর রহমানের মৃত্যু নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ নেই বলে তারা জানান। তবে শফিকুর রহমানকে হত্যা করা হয়েছে এমন গুঞ্জন রয়েছে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে শফিকুর রহমানকে হত্যা করে ধামাচাপা দেওয়ার চলছে মর্মে একাধিক স্ট্যাটাস দিয়েছে এলাকাবাসী।
এ বিষয়ে শফিকুর রহমানের ছেলে সাহাদাত হোসেন জানান, আমার বাবা মানসিক ভারসাম্যহীন, তিনি প্রায়ই আত্মহত্যার চেষ্টা করতো। তবে হত্যা করা হয়েছে তা সঠিক নয়, তিনি আত্মহত্যা করেছে।
এ বিষয়ে এস.আই ওবায়েদ উল্লাহ নয়ন জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আত্মহত্যা কারীর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি। প্রাথমিক তদন্তে তার শরীরে কোন প্রকার আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি এবং পরিবারের পক্ষ থেকে কোন প্রকার অভিযোগ নেই।
ট্যাগস :

বিশাল মিছিল নিয়ে রাজপথে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ফরিদগঞ্জে বৃদ্ধার রহস্যজনক মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৪:৪৩:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২২
এস. এম ইকবাল : চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে ৭৫ বছর বয়সি এক বৃদ্ধার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের লোকজন বলছেন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তবে ওই বৃদ্ধার মৃত্যুকে রহস্যজনক দাবী করছেন এলাকাবাসী। আত্মহত্যার সংবাদ পেয়ে ফরিদগঞ্জ থানার এস.আই মো. ওবায়েদ উল্লাহ নয়ন ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।
১২ ডিসেম্বর সোমবার সকালে উপজেলার গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের শ্রী-কালিয়া এলাকার মিজি বাড়ির বৃদ্ধা মো. শফিক মিজি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে দ্বাবী করছেন তার বড় ছেলে শাহাদাত হোসেন।
পরিবার সূত্রে জানাযায়, শফিকুর রহমান মানষিক ভারসাম্যহীন ছিলেন,  প্রায়ই তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করতো। শফিকুর রহমান সকালে ঘুম থেকে উঠে পরিবারের সকলের অগোচরে কখন ফাঁস দিয়েছে আমরা জানতাম না।তবে শফিকুর রহমানের মৃত্যু নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ নেই বলে তারা জানান। তবে শফিকুর রহমানকে হত্যা করা হয়েছে এমন গুঞ্জন রয়েছে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে শফিকুর রহমানকে হত্যা করে ধামাচাপা দেওয়ার চলছে মর্মে একাধিক স্ট্যাটাস দিয়েছে এলাকাবাসী।
এ বিষয়ে শফিকুর রহমানের ছেলে সাহাদাত হোসেন জানান, আমার বাবা মানসিক ভারসাম্যহীন, তিনি প্রায়ই আত্মহত্যার চেষ্টা করতো। তবে হত্যা করা হয়েছে তা সঠিক নয়, তিনি আত্মহত্যা করেছে।
এ বিষয়ে এস.আই ওবায়েদ উল্লাহ নয়ন জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আত্মহত্যা কারীর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি। প্রাথমিক তদন্তে তার শরীরে কোন প্রকার আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি এবং পরিবারের পক্ষ থেকে কোন প্রকার অভিযোগ নেই।