ঢাকা ০২:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মতলব-গজারিয়া সংযোগ সেতু বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জনসভার স্থান পরিদর্শনে সাংসদ

মতলব উত্তর প্রতিনিধি : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল ইউনিয়নে কালীপুর বাজারে গজারিয়া-মতলব সংযোগ সেতু বাস্তবায়নের লক্ষে সড়ক ও সেতু মন্ত্রনালয়ের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে ২৯ নভেম্বর তারিখের জনসভার স্থান শনিবার সকালে পরিদর্শন করেন চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মোঃ নুরুল আমিন রুহুল।

Model Hospital

এসময় উপস্থিত ছিলেন, মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মহিউদ্দিন, মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, ছেংগারচর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাইয়ুম চৌধুরী, আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য শাহ আলম সিদ্দিকী, চাঁদপুর জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি রহমত উল্ল্যা চৌধুরী, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক একেএম আজাদ, ছেংগারচর পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জামান সরকার, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আনিছুর রহমান পাটোয়ারী, ফয়েজ আহমেদ চৌধুরী মেমোরিয়াল হাসপাতালের এমডি তুহিন চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিটু, ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ রাজিব মিয়া, যুবলীগ নেতা মিলন চৌধুরী, রফিকুল ইসলাম, মাঈনউদ্দিন চৌধুরী, মুছা বেপারী, সাদুল্লাপুর ইউপি সদস্য সিপলু শিকদার, আ. হালিম প্রমুখ।

মতলব কালীপুর-গজারিয়ার ভবেরচর সেতু নির্মাণ হলে ঢাকা থেকে গৌরীপুর ও মতলব উত্তর উপজেলা সদরে চাঁদপুর জেলা সদরে বর্তমান দূরত্ব প্রায় ১২০ কিলোমিটার। কিন্তু ঢাকা থেকে ভবেরচর হয়ে গজারিয়া উপজেলার সীমানার উপর দিয়ে প্রস্তাবিত সেতু হয়। চাঁদপুর জেলা সদরের দূরত্ব সর্বোচ্চ ৬৮ কিলোমিটার। সেতু নির্মিত হলে ঢাকা-চাঁদপুর জেলা সদরের দূরত্ব প্রায় ৫২ কিলোমিটার সড়ক পথ কমে যাবে। এতে একদিকে যেমন সাধারণ মানুষের ভ্রমণ ব্যয় কমবে একই সাথে ভ্রমণ সময়ও কমবে প্রায় এক ঘন্টা।

মতলব-গজারিয়া সেতুর কাজ শুরু হবে জানার পর থেকে এলাকায় আনন্দের বন্যা বইছে।

এলাকাবাসী জানান, মেঘনা নদীতে সেতু নির্মিত হলে চাঁদপুর, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর ও শরিয়তপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের লোকজন রাজধানী ঢাকায় সহজে যাতায়াত করতে পারবেন।

এছাড়াও মতলব উত্তরে নির্মিত হতে যাওয়া অর্থনৈতিক জোনসহ চাঁদপুরের কৃষি, শিল্প ও পর্যটন খাতের বিকাশেও সেতুটির অপরিসীম গুরুত্ব রয়েছে।

ট্যাগস :

বিশাল মিছিল নিয়ে রাজপথে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

মতলব-গজারিয়া সংযোগ সেতু বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জনসভার স্থান পরিদর্শনে সাংসদ

আপডেট সময় : ০৩:৪০:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২

মতলব উত্তর প্রতিনিধি : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল ইউনিয়নে কালীপুর বাজারে গজারিয়া-মতলব সংযোগ সেতু বাস্তবায়নের লক্ষে সড়ক ও সেতু মন্ত্রনালয়ের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে ২৯ নভেম্বর তারিখের জনসভার স্থান শনিবার সকালে পরিদর্শন করেন চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মোঃ নুরুল আমিন রুহুল।

Model Hospital

এসময় উপস্থিত ছিলেন, মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মহিউদ্দিন, মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, ছেংগারচর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাইয়ুম চৌধুরী, আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য শাহ আলম সিদ্দিকী, চাঁদপুর জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি রহমত উল্ল্যা চৌধুরী, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক একেএম আজাদ, ছেংগারচর পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জামান সরকার, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আনিছুর রহমান পাটোয়ারী, ফয়েজ আহমেদ চৌধুরী মেমোরিয়াল হাসপাতালের এমডি তুহিন চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিটু, ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ রাজিব মিয়া, যুবলীগ নেতা মিলন চৌধুরী, রফিকুল ইসলাম, মাঈনউদ্দিন চৌধুরী, মুছা বেপারী, সাদুল্লাপুর ইউপি সদস্য সিপলু শিকদার, আ. হালিম প্রমুখ।

মতলব কালীপুর-গজারিয়ার ভবেরচর সেতু নির্মাণ হলে ঢাকা থেকে গৌরীপুর ও মতলব উত্তর উপজেলা সদরে চাঁদপুর জেলা সদরে বর্তমান দূরত্ব প্রায় ১২০ কিলোমিটার। কিন্তু ঢাকা থেকে ভবেরচর হয়ে গজারিয়া উপজেলার সীমানার উপর দিয়ে প্রস্তাবিত সেতু হয়। চাঁদপুর জেলা সদরের দূরত্ব সর্বোচ্চ ৬৮ কিলোমিটার। সেতু নির্মিত হলে ঢাকা-চাঁদপুর জেলা সদরের দূরত্ব প্রায় ৫২ কিলোমিটার সড়ক পথ কমে যাবে। এতে একদিকে যেমন সাধারণ মানুষের ভ্রমণ ব্যয় কমবে একই সাথে ভ্রমণ সময়ও কমবে প্রায় এক ঘন্টা।

মতলব-গজারিয়া সেতুর কাজ শুরু হবে জানার পর থেকে এলাকায় আনন্দের বন্যা বইছে।

এলাকাবাসী জানান, মেঘনা নদীতে সেতু নির্মিত হলে চাঁদপুর, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর ও শরিয়তপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের লোকজন রাজধানী ঢাকায় সহজে যাতায়াত করতে পারবেন।

এছাড়াও মতলব উত্তরে নির্মিত হতে যাওয়া অর্থনৈতিক জোনসহ চাঁদপুরের কৃষি, শিল্প ও পর্যটন খাতের বিকাশেও সেতুটির অপরিসীম গুরুত্ব রয়েছে।