ঢাকা ০৩:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমন ধান কাটতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কচুয়ার কৃষকরা

মো: রাছেল : চাঁদপুরের কচুয়ায় আমন ধান আগাম কাটতে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন কৃষকরা। অল্প কিছুদিনের মধ্যে পুরোদমে ধান কাটা শুরু হবে। যদিও এরই মধ্যে কোন কোন এলাকায় ধান কাটা শুরু হয়ে গেছে। এবছর আগাম জাতের আমন ধানের ফলন ভালো হয়েছে। ফলে কৃষকদের মনে আনন্দ বিরাজ করছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবং সঠিক পরিচর্যার ফলে আশানুরূপ ফলন হয়েছে।

Model Hospital

কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় এবছর ৫ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ হয়েছে। এর মধ্যে উফশী জাতের ২ হাজার ৬৬০ হেক্টর, স্থানীয় জাত ২ হাজার ৫২০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৩৭০ হেক্টর আগাম জাতের আমনের চাষ হয়েছে। এ ধরনের জাতের মধ্যে রয়েছে ব্রিধান-৭১, ব্রিধান-৭২, ব্রিধান-৭৪, ব্রিধান-৮৭, বিনা-৭ ও ১৬ জাতের ধান।

স্থানীয় কৃষক শহিদুল ইসলাম, মো: এনায়েত ও ফারুক জানান, এই বছর ধানের রোগবালাই খুবই কম। ফলন আশার চেয়ে বেশি হয়েছে। সাধারণত অগ্রহায়ণ মাসের শেষ দিকে আমন ধান কাটা হয়। তবে ইদুরের আক্রমনে কিছুটা আমন ধান নষ্ট হয়েছে। সব খরচ বাদ দিয়ে এবার লাভবান হবেন বলে আশা করছি।

কচুয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো: সোফায়েল হোসেন বলেন, আমন মৌসুমে কম সময়ে অধিক ফলন হয় এমন জাতের ধানের আবাদ বৃদ্ধির জন্য কাজ করছি। নতুন জাতগুলোর প্রদর্শনী দেওয়া হয়েছে। ফলনও ভালো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জমিতে বোরো চাষের আগে আলু-সরিষাসহ রবিশস্য উৎপাদন করতে পারবে। তাছাড়া কিছুদিনের মধ্যে আমন ধান পুরোদমে কাটা শুরু হবে। আমন ধান ও অন্যান্য ফসল চাষাবাদে কৃষকদের প্রদর্শনী ও বিনামূল্যে সার বীজ বিতরন করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

ট্যাগস :

বিশাল মিছিল নিয়ে রাজপথে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

আমন ধান কাটতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কচুয়ার কৃষকরা

আপডেট সময় : ০১:২৭:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০২২

মো: রাছেল : চাঁদপুরের কচুয়ায় আমন ধান আগাম কাটতে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন কৃষকরা। অল্প কিছুদিনের মধ্যে পুরোদমে ধান কাটা শুরু হবে। যদিও এরই মধ্যে কোন কোন এলাকায় ধান কাটা শুরু হয়ে গেছে। এবছর আগাম জাতের আমন ধানের ফলন ভালো হয়েছে। ফলে কৃষকদের মনে আনন্দ বিরাজ করছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবং সঠিক পরিচর্যার ফলে আশানুরূপ ফলন হয়েছে।

Model Hospital

কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় এবছর ৫ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ হয়েছে। এর মধ্যে উফশী জাতের ২ হাজার ৬৬০ হেক্টর, স্থানীয় জাত ২ হাজার ৫২০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৩৭০ হেক্টর আগাম জাতের আমনের চাষ হয়েছে। এ ধরনের জাতের মধ্যে রয়েছে ব্রিধান-৭১, ব্রিধান-৭২, ব্রিধান-৭৪, ব্রিধান-৮৭, বিনা-৭ ও ১৬ জাতের ধান।

স্থানীয় কৃষক শহিদুল ইসলাম, মো: এনায়েত ও ফারুক জানান, এই বছর ধানের রোগবালাই খুবই কম। ফলন আশার চেয়ে বেশি হয়েছে। সাধারণত অগ্রহায়ণ মাসের শেষ দিকে আমন ধান কাটা হয়। তবে ইদুরের আক্রমনে কিছুটা আমন ধান নষ্ট হয়েছে। সব খরচ বাদ দিয়ে এবার লাভবান হবেন বলে আশা করছি।

কচুয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো: সোফায়েল হোসেন বলেন, আমন মৌসুমে কম সময়ে অধিক ফলন হয় এমন জাতের ধানের আবাদ বৃদ্ধির জন্য কাজ করছি। নতুন জাতগুলোর প্রদর্শনী দেওয়া হয়েছে। ফলনও ভালো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জমিতে বোরো চাষের আগে আলু-সরিষাসহ রবিশস্য উৎপাদন করতে পারবে। তাছাড়া কিছুদিনের মধ্যে আমন ধান পুরোদমে কাটা শুরু হবে। আমন ধান ও অন্যান্য ফসল চাষাবাদে কৃষকদের প্রদর্শনী ও বিনামূল্যে সার বীজ বিতরন করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।