ঢাকা ১১:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাহরাস্তিতে রমজানে বিনামূল্যে সেবা প্রদান করবেন মানবিক ডাঃ শাকিল

নিজস্ব প্রতিনিধি : করোনার মহামারীতে সারা দেশে যখন লক ডাউন, বন্ধ প্রায় ডাক্তারদের চেম্বার, করোনা ব্যাতীত অন্যান্য রোগের রোগীরা যখন ঘরের বাইরে বেরুতে ভয় পাচ্ছেন, চিকিৎসা সেবা পেতে অন্যান্য রোগীরা যখন দুঃশ্চিন্তাগ্রস্থ, গৃহবন্দী রোগীরা যখন কষ্ট পাচ্ছেন ঠিক তখনই এগিয়ে এসেছেন একজন মানবতার ডাঃ আবু নাছের শাকিল
মেডিসিন, ডাইবেটিস এবং বক্ষব্যাধী এবং শিশু রোগে অভিজ্ঞ এই চিকিৎসক বর্তমান বাস্তবতায় চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তিতে শত শত রোগীকে নিঃস্বার্থ মানবিক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এ পর্যন্ত যারা ডাঃ আবু নাছের শাকিল চিকিৎসা সেবা পেয়েছেন এবং দেখেছেন তাদের কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসায় যে কারো মন ভরে ওঠবে । গর্বিত আজ শাহরাস্তিবাসী তাদের একজন ডাঃ আবু নাছের শাকিল আছে। দিনে দিনে তিনি এলাকাবাসীর স্বপ্নের ডাক্তার হয়ে উঠেছেন।
যেখানে রাত ১০ টার পরে চিকিৎসা সেবা পাওয়া অসম্ভব সেখানে এই তরুন চিকিৎসক গভীর রাতেও রোগীর জন্য পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। যখন কেউ তার বৃদ্ধ অসুস্থ বাবা মা বা নিজেকে নিয়ে গভীর রাতে উৎকন্ঠা ও দুঃচিন্তায় দিশেহারা হয়ে কি করবেন ভেবে না পেয়ে অবশেষে এই বিপদের বন্ধু ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করছেন ঠিক তখনই তিনি অনলাইনে রোগীর বিস্তারিত জেনে এবং পূর্বের রেকর্ড জেনে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন।
অর্থবিত্ত, নামযশ কিংবা বানিজ্যিক চেতনা বোধকে উপেক্ষা করে তিনি একজন মানবতার ডাক্তার, মানবিক ডাক্তার। টাকার বদলে সেবা যে একজন ডাক্তারের ব্রত হতে পারে ডাঃ আবু নাছের শাকিল সে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। গরীব ছাত্র ও অসহায় গরীবের ফ্রি চিকিৎসা করেন। এলাকায় ফ্রি রোগী দেখেন। সোনালী সমাজ গড়ার এক নিরব কারিগর এই চিকিৎসক।
শাহরাস্তির চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের আয়নাতলী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মোঃ আবু ইউসুফ পাটোয়ারীর সুযোগ্য সন্তান হলেন ডাঃ আবু নাছের শাকিল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয় এই ডাক্তার বিভিন্ন প্রয়োজনীয় পরামর্শ বিনা মূল্যে প্রদান করেন। তাছাড়া নিজ উদ্যোগে গরীব রোগীদের জন্য ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্পও করে থাকেন।প্রয়োজন ছাড়া কোন রোগীকে টেষ্ট না দিয়ে প্রয়োজনীয় ঔষধ সেবনের মাধ্যমে রোগীকে সুস্থ করার প্রয়াসের জন্যই ইতিমধ্যে শাহরাস্তি জুড়েই তার ভূয়সী প্রশংসা শুনা যায়।
রমজান ছাড়াও সারাবছর তিনি তার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বাসভবনে ও এলাকায় সারাবছর মুক্তিযোদ্ধা এবং তার স্ত্রী  কিংবা তার অসহায় সন্তান, এতিম, ভিখারি, বিধবা, প্রতিবন্ধী, মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, দরিদ্র খাদেম, সকল সংবাদকর্মী, সকল মেডিকেল স্টাফ, সকল শিক্ষক, সকল মেডিকেলের ছাত্রছাত্রী এবং তাদের মা বাবা সহ আরও অনেককে বিনামূল্যে সেবা প্রদান করে আসছেন।
তিনি যেসব রোগের সেবা প্রদান করেন তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হলো মেডিসিন, ডাইবেটিস, শ্বাসকষ্ট,  নিউমোনিয়া, অ্যাজমা, হাপানী, জ্বর, বুকব্যাথা, জ্বালাপোড়া, গ্যাস্টিক, এসিডিটি, তীব্র বমি, পেটে ব্যাথা, পেট ফুলে যাওয়া, মুখ ফুলে যাওয়া, দুই পায়ে পানি আসা, পা ফুলে যাওয়া, দুই পা কামড়ানো, পিঠে ব্যাথা, শরীর জ্বালা পোড়া, পায়খানা প্রশ্রাবে সমস্যা এবং জ্বালাপোড়া, তীব্র মাথাব্যাথা, দাঁত মুখে খিচুনির সমস্যা, বাত ব্যাথা, হাটু কোমরে ব্যাথা, যক্ষা, ডেঙ্গু, করোনা, চর্ম এলার্জীর চিকিৎসাসহ ইত্যাদি ধরনের মেডিসিনের রোগী। এছাড়া শিশুদের চিকিৎসাও তিনি দিয়ে থাকেন।
সমাজকর্মী সুমন মিয়াজী বলেন, যেখানে সরকারী হাসপাতালের ডাক্তারদের ল্যাব বাণিজ্যে দিশেহারা সাধারণ জনগণ, সেখানে মানবিক ডাক্তারের অমায়িক আচরণে ও চিকিৎসা সেবায় আমরা সকলেই মুগ্ধ। তিনি তার ডাক্তারী সেবার মাধ্যমে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়ে ইতিমধ্যেই ভালো মনুষত্বের পরিচয় দিয়েছেন। সারা জীবন এমন নিঃস্বার্থ সেবা প্রদানের মাধ্যমে জনগণকে সেবা দিয়ে যাক, এটাই কামনা করি।
ট্যাগস :

শাহরাস্তিতে রমজানে বিনামূল্যে সেবা প্রদান করবেন মানবিক ডাঃ শাকিল

আপডেট সময় : ০১:৫৩:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ এপ্রিল ২০২২
নিজস্ব প্রতিনিধি : করোনার মহামারীতে সারা দেশে যখন লক ডাউন, বন্ধ প্রায় ডাক্তারদের চেম্বার, করোনা ব্যাতীত অন্যান্য রোগের রোগীরা যখন ঘরের বাইরে বেরুতে ভয় পাচ্ছেন, চিকিৎসা সেবা পেতে অন্যান্য রোগীরা যখন দুঃশ্চিন্তাগ্রস্থ, গৃহবন্দী রোগীরা যখন কষ্ট পাচ্ছেন ঠিক তখনই এগিয়ে এসেছেন একজন মানবতার ডাঃ আবু নাছের শাকিল
মেডিসিন, ডাইবেটিস এবং বক্ষব্যাধী এবং শিশু রোগে অভিজ্ঞ এই চিকিৎসক বর্তমান বাস্তবতায় চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তিতে শত শত রোগীকে নিঃস্বার্থ মানবিক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এ পর্যন্ত যারা ডাঃ আবু নাছের শাকিল চিকিৎসা সেবা পেয়েছেন এবং দেখেছেন তাদের কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসায় যে কারো মন ভরে ওঠবে । গর্বিত আজ শাহরাস্তিবাসী তাদের একজন ডাঃ আবু নাছের শাকিল আছে। দিনে দিনে তিনি এলাকাবাসীর স্বপ্নের ডাক্তার হয়ে উঠেছেন।
যেখানে রাত ১০ টার পরে চিকিৎসা সেবা পাওয়া অসম্ভব সেখানে এই তরুন চিকিৎসক গভীর রাতেও রোগীর জন্য পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। যখন কেউ তার বৃদ্ধ অসুস্থ বাবা মা বা নিজেকে নিয়ে গভীর রাতে উৎকন্ঠা ও দুঃচিন্তায় দিশেহারা হয়ে কি করবেন ভেবে না পেয়ে অবশেষে এই বিপদের বন্ধু ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করছেন ঠিক তখনই তিনি অনলাইনে রোগীর বিস্তারিত জেনে এবং পূর্বের রেকর্ড জেনে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন।
অর্থবিত্ত, নামযশ কিংবা বানিজ্যিক চেতনা বোধকে উপেক্ষা করে তিনি একজন মানবতার ডাক্তার, মানবিক ডাক্তার। টাকার বদলে সেবা যে একজন ডাক্তারের ব্রত হতে পারে ডাঃ আবু নাছের শাকিল সে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। গরীব ছাত্র ও অসহায় গরীবের ফ্রি চিকিৎসা করেন। এলাকায় ফ্রি রোগী দেখেন। সোনালী সমাজ গড়ার এক নিরব কারিগর এই চিকিৎসক।
শাহরাস্তির চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের আয়নাতলী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মোঃ আবু ইউসুফ পাটোয়ারীর সুযোগ্য সন্তান হলেন ডাঃ আবু নাছের শাকিল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয় এই ডাক্তার বিভিন্ন প্রয়োজনীয় পরামর্শ বিনা মূল্যে প্রদান করেন। তাছাড়া নিজ উদ্যোগে গরীব রোগীদের জন্য ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্পও করে থাকেন।প্রয়োজন ছাড়া কোন রোগীকে টেষ্ট না দিয়ে প্রয়োজনীয় ঔষধ সেবনের মাধ্যমে রোগীকে সুস্থ করার প্রয়াসের জন্যই ইতিমধ্যে শাহরাস্তি জুড়েই তার ভূয়সী প্রশংসা শুনা যায়।
রমজান ছাড়াও সারাবছর তিনি তার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বাসভবনে ও এলাকায় সারাবছর মুক্তিযোদ্ধা এবং তার স্ত্রী  কিংবা তার অসহায় সন্তান, এতিম, ভিখারি, বিধবা, প্রতিবন্ধী, মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, দরিদ্র খাদেম, সকল সংবাদকর্মী, সকল মেডিকেল স্টাফ, সকল শিক্ষক, সকল মেডিকেলের ছাত্রছাত্রী এবং তাদের মা বাবা সহ আরও অনেককে বিনামূল্যে সেবা প্রদান করে আসছেন।
তিনি যেসব রোগের সেবা প্রদান করেন তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হলো মেডিসিন, ডাইবেটিস, শ্বাসকষ্ট,  নিউমোনিয়া, অ্যাজমা, হাপানী, জ্বর, বুকব্যাথা, জ্বালাপোড়া, গ্যাস্টিক, এসিডিটি, তীব্র বমি, পেটে ব্যাথা, পেট ফুলে যাওয়া, মুখ ফুলে যাওয়া, দুই পায়ে পানি আসা, পা ফুলে যাওয়া, দুই পা কামড়ানো, পিঠে ব্যাথা, শরীর জ্বালা পোড়া, পায়খানা প্রশ্রাবে সমস্যা এবং জ্বালাপোড়া, তীব্র মাথাব্যাথা, দাঁত মুখে খিচুনির সমস্যা, বাত ব্যাথা, হাটু কোমরে ব্যাথা, যক্ষা, ডেঙ্গু, করোনা, চর্ম এলার্জীর চিকিৎসাসহ ইত্যাদি ধরনের মেডিসিনের রোগী। এছাড়া শিশুদের চিকিৎসাও তিনি দিয়ে থাকেন।
সমাজকর্মী সুমন মিয়াজী বলেন, যেখানে সরকারী হাসপাতালের ডাক্তারদের ল্যাব বাণিজ্যে দিশেহারা সাধারণ জনগণ, সেখানে মানবিক ডাক্তারের অমায়িক আচরণে ও চিকিৎসা সেবায় আমরা সকলেই মুগ্ধ। তিনি তার ডাক্তারী সেবার মাধ্যমে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়ে ইতিমধ্যেই ভালো মনুষত্বের পরিচয় দিয়েছেন। সারা জীবন এমন নিঃস্বার্থ সেবা প্রদানের মাধ্যমে জনগণকে সেবা দিয়ে যাক, এটাই কামনা করি।