ঢাকা ০৭:০৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কচুয়ায় সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় গ্রেফতার-২

প্রিয় চাঁদপুর রিপোর্ট : চাঁদপুরের কচুয়ায় সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় ২জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

Model Hospital

গ্রেফতারকৃতরা হলো উপজেলার গোহট উত্তর ইউনিয়নের পালগিরি গ্রামের শাখাওয়াত হোসেন ও গোলাম ফারুক নবির। মঙ্গলবার বিকেলে পেশাগত দায়িত্ব পালনের অংশ হিসেবে দৈনিক শপথের সাংবাদিক মো. রাসেল পালগিরি বাজারে গেলে বখাটে মহিউদ্দীনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাকে সংবাদ সংগ্রহের কাজে বাধা প্রদান করে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্রসন্ত্র দিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় সজ্ঞাহীন অবস্থায় সাংবাদিক রাসেলকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে এক পথচারী তাকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পালগিরি গ্রামের ইসমাইল ভান্ডারির ছেলে গোলাম ফারুক নবির ও তাজুল ইসলামের ছেলে শাখওয়াত হোসেনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

এঘটনায় বুধবার সাংবাদিক রাসেল বাদী হয়ে মহিউদ্দীন (মহিন)সহ ৭জনকে এজহার নামীয় ও ৫জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কচুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মহিউদ্দীন জানান, বুধবার গ্রেফতারকৃতদের চাঁদপুরের বিজ্ঞ আদালতে সোপার্দ করার মধ্য দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং এঘটনায় জড়িত অনান্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এঘটনায় কচুয়া প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে সভাপতি মানিক ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত সকল ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান সুমন

কচুয়ায় সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় গ্রেফতার-২

আপডেট সময় : ০১:৪২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ মার্চ ২০২২

প্রিয় চাঁদপুর রিপোর্ট : চাঁদপুরের কচুয়ায় সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় ২জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

Model Hospital

গ্রেফতারকৃতরা হলো উপজেলার গোহট উত্তর ইউনিয়নের পালগিরি গ্রামের শাখাওয়াত হোসেন ও গোলাম ফারুক নবির। মঙ্গলবার বিকেলে পেশাগত দায়িত্ব পালনের অংশ হিসেবে দৈনিক শপথের সাংবাদিক মো. রাসেল পালগিরি বাজারে গেলে বখাটে মহিউদ্দীনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাকে সংবাদ সংগ্রহের কাজে বাধা প্রদান করে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্রসন্ত্র দিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় সজ্ঞাহীন অবস্থায় সাংবাদিক রাসেলকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে এক পথচারী তাকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পালগিরি গ্রামের ইসমাইল ভান্ডারির ছেলে গোলাম ফারুক নবির ও তাজুল ইসলামের ছেলে শাখওয়াত হোসেনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

এঘটনায় বুধবার সাংবাদিক রাসেল বাদী হয়ে মহিউদ্দীন (মহিন)সহ ৭জনকে এজহার নামীয় ও ৫জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কচুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মহিউদ্দীন জানান, বুধবার গ্রেফতারকৃতদের চাঁদপুরের বিজ্ঞ আদালতে সোপার্দ করার মধ্য দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং এঘটনায় জড়িত অনান্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এঘটনায় কচুয়া প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে সভাপতি মানিক ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত সকল ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন।