ঢাকা ০৫:৫৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কচুয়ায় নারী দিবসে ওসি’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেলো দশম শ্রেণির ছাত্রী

মেহেদী হাসান, কচুয়া : সবকিছু ঠিকঠাকই ছিলো, আগামী বৃহস্পতিবার বিয়ের পিড়িতে বসার আয়োজন চলছিল উপজেলার তুলপাই দারাশাহী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর। এমন সংবাদ পেলো কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মহিউদ্দিনের কাছে। মুহুর্তেই ভেস্তে গেলো সকল আয়োজন, বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেলো দশম শ্রেণির ছাত্রী।

Model Hospital

নারী দিবসে এরকম একটি মহৎ উদ্যোগ নেওয়ার কারনে প্রশংসায় ভাসছেন ওসি মো. মহিউদ্দিন।

জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নের নাংলা গ্রামের সরকার বাড়ির বাসুদেব সরকারের মেয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রীর পারিবারিকভাবে বিয়ে ঠিক হয় পাশ্ববর্তী উপজেলার বুড়বুড়া গ্রামের এসকে মিঠুনের সাথে। আগামী বৃহস্পতিবার সেই ছেলের সাথে বিয়ের লগ্ন নির্ধারণ করা হয়।

মঙ্গলবার কচুয়া থানার ওসি মো. মহিউদ্দিনের কাছে খবর পৌছালে ওই দিন রাতে তিনি স্কুল ছাত্রীর বাবাকে সংবাদ পাঠিয়ে থানায় নিয়ে এসে বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে বুঝিয়ে বিয়ের আয়োজন বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে কনে পক্ষ আর বাল্য বিবাহ সংগঠিত করবে না মর্মে মুছলেকা দেন স্কুল ছাত্রীর পিতা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মহিউদ্দিন।

ট্যাগস :

কচুয়ায় নারী দিবসে ওসি’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেলো দশম শ্রেণির ছাত্রী

আপডেট সময় : ০৬:৫০:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ মার্চ ২০২২

মেহেদী হাসান, কচুয়া : সবকিছু ঠিকঠাকই ছিলো, আগামী বৃহস্পতিবার বিয়ের পিড়িতে বসার আয়োজন চলছিল উপজেলার তুলপাই দারাশাহী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর। এমন সংবাদ পেলো কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মহিউদ্দিনের কাছে। মুহুর্তেই ভেস্তে গেলো সকল আয়োজন, বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেলো দশম শ্রেণির ছাত্রী।

Model Hospital

নারী দিবসে এরকম একটি মহৎ উদ্যোগ নেওয়ার কারনে প্রশংসায় ভাসছেন ওসি মো. মহিউদ্দিন।

জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নের নাংলা গ্রামের সরকার বাড়ির বাসুদেব সরকারের মেয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রীর পারিবারিকভাবে বিয়ে ঠিক হয় পাশ্ববর্তী উপজেলার বুড়বুড়া গ্রামের এসকে মিঠুনের সাথে। আগামী বৃহস্পতিবার সেই ছেলের সাথে বিয়ের লগ্ন নির্ধারণ করা হয়।

মঙ্গলবার কচুয়া থানার ওসি মো. মহিউদ্দিনের কাছে খবর পৌছালে ওই দিন রাতে তিনি স্কুল ছাত্রীর বাবাকে সংবাদ পাঠিয়ে থানায় নিয়ে এসে বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে বুঝিয়ে বিয়ের আয়োজন বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে কনে পক্ষ আর বাল্য বিবাহ সংগঠিত করবে না মর্মে মুছলেকা দেন স্কুল ছাত্রীর পিতা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মহিউদ্দিন।