ঢাকা ১১:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জ পৌরসভার ড্রেন পরিষ্কার না করায় জলাবদ্ধতা, দুর্ভোগে শতাধিক পরিবার

হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ড মকিমাবাদ। হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারের পপুলার হাসপাতালের পিছনে রয়েছে কয়েকটি বহুতল ভবন। পানি নিষ্কাশনের ভোগান্তি এড়াতে করা হয়েছে ড্রেনেজ ব্যবস্থা। তবে দীর্ঘদিন ধরে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও নেই রক্ষণাবেক্ষণ। এতে বিপাকে পড়েছে প্রায় শতাধিক পরিবার।

Model Hospital

মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, সোমবার বৃষ্টি হওয়ায় চলাচলের পথে পানি জমে আছে। সেখানে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও পরিষ্কার না করায় তৈরি হয়েছে জলাবদ্ধতা। পানি জমে থাকায় ড্রেনের ভিতরে আটকে থাকা ময়লার গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে আশেপাশে।

স্থানীয়রা বাসিন্দা পলাশ হোসেন, রাসেল, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল্লাহ ও রোকেয়া বেগম জানান, এখানে প্রায় শতাধিক পরিবারের বসবাস। দীর্ঘদিন ধরে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও তা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন না করায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ ময়লার কারনে একটু বৃষ্টি হলেই তৈরি হয় জলাবদ্ধতা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দারে দারে ঘুরেও সমাধান পায়নি বলেও অভিযোগ করেন তাঁরা।

পৌর মেয়র আ স ম মাহবুব উল আলম লিপনের সু-দৃষ্টি কামনা করেন ভুক্তভোগীরা। জরুরী ড্রেনটি পরিষ্কার করে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি দিতে অনুরোধ করা হয়।

জানতে চাইলে পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুমন তফদার জানান, স্থানীয়রা যেখানে সেখানে ময়লা ফেলার কারণে এমন হচ্ছে। গেলো এক মাস আগেও ড্রেনটি পরিষ্কার করা হয়েছে। আর এই ড্রেনটি পৌরসভার নয় তাদের ব্যক্তিগত। তার পরও ড্রেনটির জন্য প্রস্তাবিত বাজেট রাখা হয়েছে। অবশ্যই আবারও পরিষ্কার কাজ করা হবে।

ট্যাগস :

হাজীগঞ্জ পৌরসভার ড্রেন পরিষ্কার না করায় জলাবদ্ধতা, দুর্ভোগে শতাধিক পরিবার

আপডেট সময় : ০৪:০৩:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মে ২০২৪

হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ড মকিমাবাদ। হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারের পপুলার হাসপাতালের পিছনে রয়েছে কয়েকটি বহুতল ভবন। পানি নিষ্কাশনের ভোগান্তি এড়াতে করা হয়েছে ড্রেনেজ ব্যবস্থা। তবে দীর্ঘদিন ধরে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও নেই রক্ষণাবেক্ষণ। এতে বিপাকে পড়েছে প্রায় শতাধিক পরিবার।

Model Hospital

মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, সোমবার বৃষ্টি হওয়ায় চলাচলের পথে পানি জমে আছে। সেখানে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও পরিষ্কার না করায় তৈরি হয়েছে জলাবদ্ধতা। পানি জমে থাকায় ড্রেনের ভিতরে আটকে থাকা ময়লার গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে আশেপাশে।

স্থানীয়রা বাসিন্দা পলাশ হোসেন, রাসেল, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল্লাহ ও রোকেয়া বেগম জানান, এখানে প্রায় শতাধিক পরিবারের বসবাস। দীর্ঘদিন ধরে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও তা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন না করায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ ময়লার কারনে একটু বৃষ্টি হলেই তৈরি হয় জলাবদ্ধতা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দারে দারে ঘুরেও সমাধান পায়নি বলেও অভিযোগ করেন তাঁরা।

পৌর মেয়র আ স ম মাহবুব উল আলম লিপনের সু-দৃষ্টি কামনা করেন ভুক্তভোগীরা। জরুরী ড্রেনটি পরিষ্কার করে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি দিতে অনুরোধ করা হয়।

জানতে চাইলে পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুমন তফদার জানান, স্থানীয়রা যেখানে সেখানে ময়লা ফেলার কারণে এমন হচ্ছে। গেলো এক মাস আগেও ড্রেনটি পরিষ্কার করা হয়েছে। আর এই ড্রেনটি পৌরসভার নয় তাদের ব্যক্তিগত। তার পরও ড্রেনটির জন্য প্রস্তাবিত বাজেট রাখা হয়েছে। অবশ্যই আবারও পরিষ্কার কাজ করা হবে।