ঢাকা ০২:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কচুয়ায় গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

চাঁদপুরের কচুয়ায় সীমা আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

Model Hospital

গত সোমবার (২০ নভেম্বর) রাতে উপজেলার পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নের ফতেপুর গ্রামের ঠাকুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে কচুয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় নিহতের মা জোসনা বেগম বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন।

নিহত মা জোসনা বেগম জানান, তার বাবা আল-আমিন ওমান প্রবাসী। প্রায় ৭ বছর পূর্বে আমার মেয়ে সীমাকে প্রথমে উপজেলার খিলমেহের গ্রামে দু’পরিবারের সম্মতিক্রমে বিয়ে দেওয়া হয়। ওই সংসারে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে তার। পারিবারিক কলহের কারণে ১ বছর পূর্বে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়।

সম্প্রতি সীমা আক্তার লক্ষীপুর সদর উপজেলার আবির নগর এলাকার নুরুল আমিনের ছেলে রিপনের সাথে গোপনে দ্বিতীয় বিবাহ করে তারা আমার বাড়ীতে চলে আসে। এই নিয়ে সীমাকে বকাঝকা করলে সোমবার সন্ধ্যায় কাউকে কিছু না বলে তার কক্ষে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাতের খাবারের জন্য ডাকাডাকি করলে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে দেখি সীমা সিলিং ফ্যানে সাথে গলায় ফাঁস অবস্থায় ঝুলে আছে।

বিষয়টি ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নানকে জানালে তিনি কচুয়া থানা পুলিশকে ফোন দিয়ে অবগত করেন।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান জানান, সীমার লাশ উদ্ধার করে চাঁদপুর মেডিকেল কলেজ ও সরকারি হাসপাতলের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে নিহতের মা বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা করেছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ক্যাব চাঁদপুরের আয়োজনে বাজার পরিস্থিতি ও নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক মত বিনিময় সভা

কচুয়ায় গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৬:৪৩:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

চাঁদপুরের কচুয়ায় সীমা আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

Model Hospital

গত সোমবার (২০ নভেম্বর) রাতে উপজেলার পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নের ফতেপুর গ্রামের ঠাকুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে কচুয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় নিহতের মা জোসনা বেগম বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন।

নিহত মা জোসনা বেগম জানান, তার বাবা আল-আমিন ওমান প্রবাসী। প্রায় ৭ বছর পূর্বে আমার মেয়ে সীমাকে প্রথমে উপজেলার খিলমেহের গ্রামে দু’পরিবারের সম্মতিক্রমে বিয়ে দেওয়া হয়। ওই সংসারে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে তার। পারিবারিক কলহের কারণে ১ বছর পূর্বে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়।

সম্প্রতি সীমা আক্তার লক্ষীপুর সদর উপজেলার আবির নগর এলাকার নুরুল আমিনের ছেলে রিপনের সাথে গোপনে দ্বিতীয় বিবাহ করে তারা আমার বাড়ীতে চলে আসে। এই নিয়ে সীমাকে বকাঝকা করলে সোমবার সন্ধ্যায় কাউকে কিছু না বলে তার কক্ষে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাতের খাবারের জন্য ডাকাডাকি করলে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে দেখি সীমা সিলিং ফ্যানে সাথে গলায় ফাঁস অবস্থায় ঝুলে আছে।

বিষয়টি ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নানকে জানালে তিনি কচুয়া থানা পুলিশকে ফোন দিয়ে অবগত করেন।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান জানান, সীমার লাশ উদ্ধার করে চাঁদপুর মেডিকেল কলেজ ও সরকারি হাসপাতলের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে নিহতের মা বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা করেছে।