ঢাকা ০৩:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বর্তমান সরকার কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করছে : ইউএনও গাজী শরীফুল হাসান

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার অভ্যন্তরীণ আমন ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ধান-চাল সংগ্রহ কমিটির সভাপতি গাজী শরিফুল হাসান।

মতলব উত্তর ব্যুরো : “গুদামে গুদামে কৃষকের ধান, বাঁচে কৃষক বাঁচে প্রাণ”-এই শ্লোগানে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার অভ্যন্তরীণ আমন ধান সংগ্রহ শুরু হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলা এলএসডি অফিস প্রাঙ্গণে ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ধান-চাল সংগ্রহ কমিটির সভাপতি গাজী শরিফুল হাসান।

Model Hospital

উদ্বোধনকালে ইউএনও বলেন, বর্তমান সরকার কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করছে। এবং সরাসরি প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করছে। কৃষকরা যাতে হয়রানি না হয় এবং কোনো দালালরা সরকারের এই সুবিধা যাতে না পায় সে ব্যাপারে খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

তিনি কৃষকদের উদ্দেশ্য বলেন খাদ্য শষ্য উৎপাদনে খরচ কমাতে হবে। অতিরিক্ত সার ব্যবহার করা যাবে না। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে হবে। খাদ্যগুদামগুলোতে সামাজিক ও শারিরিক দূূরত্ব বজায় রেখে মানসম্পন্ন ধান-চাল সংগ্রহ করতে হবে। ধান চাল দিতে এসে কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হন সেদিকেও দৃষ্টি রাখতে খাদ্য কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ও ধান-চাল সংগ্রহ কমিটির সদস্য সচিব জামাল উদ্দিন, ছেংগারচর পৌরসভার প্যানেল মেয়র আবদুল মান্নান বেপারী, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবদুর রউফ’সহ সকল কার্ডধারী কৃষকগণ।

উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আইউব আলী বলেন, সরকারের উদ্দেশ্য কৃষক যেন ন্যায্য মূল্য পায়। ফলে সরকারি মূল্যে প্রতি কেজি ২৭ টাকা দরে প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ২৮৫ মেট্রিক টন ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ২৮ হাজার কৃষকের মধ্য থেকে সরকারি ভাবে আমন ধান ক্রয় করতে লটারির মাধ্যমে ১৪২ জন কৃষককে নির্বাচিত করা হয়েছে। এতে প্রতি কৃষক গুদামে ২ টন ধান বিক্রি করতে পারবে। এ ধান সংগ্রহ কর্মসূচি চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ক্যাব চাঁদপুরের আয়োজনে বাজার পরিস্থিতি ও নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক মত বিনিময় সভা

বর্তমান সরকার কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করছে : ইউএনও গাজী শরীফুল হাসান

আপডেট সময় : ০২:৪৫:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০২১

মতলব উত্তর ব্যুরো : “গুদামে গুদামে কৃষকের ধান, বাঁচে কৃষক বাঁচে প্রাণ”-এই শ্লোগানে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার অভ্যন্তরীণ আমন ধান সংগ্রহ শুরু হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলা এলএসডি অফিস প্রাঙ্গণে ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ধান-চাল সংগ্রহ কমিটির সভাপতি গাজী শরিফুল হাসান।

Model Hospital

উদ্বোধনকালে ইউএনও বলেন, বর্তমান সরকার কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করছে। এবং সরাসরি প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করছে। কৃষকরা যাতে হয়রানি না হয় এবং কোনো দালালরা সরকারের এই সুবিধা যাতে না পায় সে ব্যাপারে খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

তিনি কৃষকদের উদ্দেশ্য বলেন খাদ্য শষ্য উৎপাদনে খরচ কমাতে হবে। অতিরিক্ত সার ব্যবহার করা যাবে না। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে হবে। খাদ্যগুদামগুলোতে সামাজিক ও শারিরিক দূূরত্ব বজায় রেখে মানসম্পন্ন ধান-চাল সংগ্রহ করতে হবে। ধান চাল দিতে এসে কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হন সেদিকেও দৃষ্টি রাখতে খাদ্য কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ও ধান-চাল সংগ্রহ কমিটির সদস্য সচিব জামাল উদ্দিন, ছেংগারচর পৌরসভার প্যানেল মেয়র আবদুল মান্নান বেপারী, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবদুর রউফ’সহ সকল কার্ডধারী কৃষকগণ।

উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আইউব আলী বলেন, সরকারের উদ্দেশ্য কৃষক যেন ন্যায্য মূল্য পায়। ফলে সরকারি মূল্যে প্রতি কেজি ২৭ টাকা দরে প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ২৮৫ মেট্রিক টন ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ২৮ হাজার কৃষকের মধ্য থেকে সরকারি ভাবে আমন ধান ক্রয় করতে লটারির মাধ্যমে ১৪২ জন কৃষককে নির্বাচিত করা হয়েছে। এতে প্রতি কৃষক গুদামে ২ টন ধান বিক্রি করতে পারবে। এ ধান সংগ্রহ কর্মসূচি চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।