ঢাকা ০৯:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাকিলা ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ইউপি সদস্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও লুট

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার ২ নং বাকিলা ইউনিয়নে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. বিল্লাল গাজীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইভটিজারদের হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ইভটিজার একই ইউনিয়নের স্বর্ণা গ্রামের মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে মিলন হোসেন, একই গ্রামের আলী হোসেনসহ একাধিক যুবকের বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ  দায়ের করেন ইউপি সদস্য মো. বিল্লাল গাজী।
থানায় লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ইউপি সদস্য বিল্লাল গাজী বলেন, গত ৮ মে সোমবার রাত ৮ টার দিকে আমার ওয়ার্ডের বাকিলা রেললাইনের উপর পাশ্ববর্তী স্বর্ণা গ্রামের মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে মিলন হোসেন, একই গ্রামের আলী হোসেনসহ কয়েকজন যুবক সিগারেট হাতে মহিলাদের টার্গেট করে ধোঁয়া ছাড়ে আর শীষ দেয়। আমি বিষয়টি জানতে পেরে আমার চাচাতো ভাইসহ কয়েকজন তাদের কাছে গিয়ে ইভটিজিং করায় প্রতিবাদ করে চলে আসি। তারা পরে আমার চাচাতো ভাইদের উপর ছড়ো হয়ে গায়ে হাত তুলে পালিয়ে যায়।
পরের দিন মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে ইভটিজার মিলন হোসেন ও আলী হোসেনের নেতৃত্বে ২০/২৫ জন যুবক বাকিলা বাজারে আমার গাজী মুদির দোকানে হামলা চালায়। দোকানে বসা আমার প্রতিবন্ধী ছেলে রুবেলকে মারধর করে জখমপ্রাপ্ত করে। এ সময় দোকানে মুদি মালামাল,  নগদ ৫০ হাজার টাকা ও দুইটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। আমি জনপ্রতিনিধি হিসাবে এবং আমার দোকানে প্রতিবন্ধী ছেলেসহ তিনজনকে মারধর ও লুটপাটের ঘটনায় ইভটিজারদের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।
এ ঘটনা শুনে বাকিলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অমল কান্তি ধর পরিদর্শন করেন এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে ইউপি সদস্য ও ব্যবসায়ী বিল্লাল গাজীকে পরামর্শ দেন।
এ বিষয়ে বাকিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিলন বলেন, খবর পেয়ে দোকানে ছুটে যাই এবং ক্ষয়ক্ষতি দেখে প্রশাসনকে অবহিত করেছি।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে লঞ্চে শুরু হয়েছে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা

বাকিলা ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ইউপি সদস্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও লুট

আপডেট সময় : ০৯:৩১:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার ২ নং বাকিলা ইউনিয়নে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. বিল্লাল গাজীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইভটিজারদের হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ইভটিজার একই ইউনিয়নের স্বর্ণা গ্রামের মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে মিলন হোসেন, একই গ্রামের আলী হোসেনসহ একাধিক যুবকের বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ  দায়ের করেন ইউপি সদস্য মো. বিল্লাল গাজী।
থানায় লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ইউপি সদস্য বিল্লাল গাজী বলেন, গত ৮ মে সোমবার রাত ৮ টার দিকে আমার ওয়ার্ডের বাকিলা রেললাইনের উপর পাশ্ববর্তী স্বর্ণা গ্রামের মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে মিলন হোসেন, একই গ্রামের আলী হোসেনসহ কয়েকজন যুবক সিগারেট হাতে মহিলাদের টার্গেট করে ধোঁয়া ছাড়ে আর শীষ দেয়। আমি বিষয়টি জানতে পেরে আমার চাচাতো ভাইসহ কয়েকজন তাদের কাছে গিয়ে ইভটিজিং করায় প্রতিবাদ করে চলে আসি। তারা পরে আমার চাচাতো ভাইদের উপর ছড়ো হয়ে গায়ে হাত তুলে পালিয়ে যায়।
পরের দিন মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে ইভটিজার মিলন হোসেন ও আলী হোসেনের নেতৃত্বে ২০/২৫ জন যুবক বাকিলা বাজারে আমার গাজী মুদির দোকানে হামলা চালায়। দোকানে বসা আমার প্রতিবন্ধী ছেলে রুবেলকে মারধর করে জখমপ্রাপ্ত করে। এ সময় দোকানে মুদি মালামাল,  নগদ ৫০ হাজার টাকা ও দুইটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। আমি জনপ্রতিনিধি হিসাবে এবং আমার দোকানে প্রতিবন্ধী ছেলেসহ তিনজনকে মারধর ও লুটপাটের ঘটনায় ইভটিজারদের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।
এ ঘটনা শুনে বাকিলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অমল কান্তি ধর পরিদর্শন করেন এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে ইউপি সদস্য ও ব্যবসায়ী বিল্লাল গাজীকে পরামর্শ দেন।
এ বিষয়ে বাকিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিলন বলেন, খবর পেয়ে দোকানে ছুটে যাই এবং ক্ষয়ক্ষতি দেখে প্রশাসনকে অবহিত করেছি।