ঢাকা ০৩:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জ থেকে দুই হাজার নেতাকর্মী নিয়ে টুঙ্গীপাড়ায় মনোনয়ন চাইলেন গাজী মাঈনুদ্দিন

নিজস্ব প্রতিনিধি : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ থেকে প্রায় দুই হাজার নেতাকর্মীকে টুঙ্গীপাড়া নিয়ে আগামি দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের মনোনয়ন চাইলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মো. মাঈনুদ্দিন।

Model Hospital

শনিবার (১৪ জানুয়ারী) বেলা ২ টার দিকে শতাধীক মুক্তিযোদ্ধা, দলীয় দুই সহস্রাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসাবে তাঁর নাম ঘোষণা করেন। তাকে সমর্থন করে পাশে থাকার ঘোষণা দেন তৃণমূলের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার ভোররাতে মুক্তিযোদ্ধা, দলীয় নেতাকর্মী এবং সংবাদকর্মীদের নিয় অর্ধশতাধিক গাড়িযোগে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার উদ্দ্যেশ্যে রওনা দেন। বেলা আড়াইটার দিকে পৌছে পুষ্পস্তবক অপর্নের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এরপর বঙ্গবন্ধুসহ সপরিবারের আত্মার মাগফেরাত, দেশ ও জাতীর সমৃদ্ধিসহ নিজ নির্বাচনী এলাকা হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তির মঙ্গল কামনায় মিলাদ, দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, গাজী মাইনুদ্দিন আওয়ামী লীগের একজন পরিক্ষিত কর্মী। তিনি তৃণমূলের রাজনীতিতে শক্ত ভীত গড়েছেন। তিনি শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদসহ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন। বর্তমানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন। যে পদে তিনি হ্যাট্রিক (তিনবার) করেছেন।

সর্বোপরি গাজী মাইনুদ্দিন একজন জনপ্রিয় নেতা। তিনি তাঁর রাজনৈতিক দায়িত্ব পালনকালে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, পৌরসভা নির্বাচনসহ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের নির্বাচিতকরণে কাজ করেছেন।

যার ফলে বর্তমান সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র এবং উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মধ্য ৯টি ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীরা জনপ্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করছেন।

এ বিষয়ে গাজী মাইনুদ্দিন বলেন, সাধারণ মানুষ আর দলের নেতাকর্মীরাই আমার ভরসাস্থল। তাদের আশা-আকাঙ্খা ও চাহিদার কারণে আগামি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীতার ঘোষণা দিয়েছি। সংসদে যেতে পারলে এলাকার উন্নয়ন করতে পারবো। দলের প্রতি বিশ্বাস এবং আস্থা রেখেই প্রচারণা শুরু করেছি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কাউকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করে রাজনীতি করি না। চেষ্টা করেছি, তাই নিজের যোগ্যতা বলে মানুষের কাছাকাছি যেতে পেরেছি। মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য সীমানা বাড়াতে চাই। সেজন্য মনোনয়ন চাইবো। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত এবং দলীয় সভানেত্রী যে সিদ্ধান্ত দিবেন, তা মাথা পেতে নিবো।

এ সময় তিনি আরো বলেন, আশা করি মনোনয়ন পেলে সকল প্রতিকূলতা পার করে বিজয়ী হতে পারবো। তবে আজকে থেকে আমার এ মিশন শুরু করলাম।

ট্যাগস :

বিশাল মিছিল নিয়ে রাজপথে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

হাজীগঞ্জ থেকে দুই হাজার নেতাকর্মী নিয়ে টুঙ্গীপাড়ায় মনোনয়ন চাইলেন গাজী মাঈনুদ্দিন

আপডেট সময় : ০৪:৫০:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধি : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ থেকে প্রায় দুই হাজার নেতাকর্মীকে টুঙ্গীপাড়া নিয়ে আগামি দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের মনোনয়ন চাইলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মো. মাঈনুদ্দিন।

Model Hospital

শনিবার (১৪ জানুয়ারী) বেলা ২ টার দিকে শতাধীক মুক্তিযোদ্ধা, দলীয় দুই সহস্রাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসাবে তাঁর নাম ঘোষণা করেন। তাকে সমর্থন করে পাশে থাকার ঘোষণা দেন তৃণমূলের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার ভোররাতে মুক্তিযোদ্ধা, দলীয় নেতাকর্মী এবং সংবাদকর্মীদের নিয় অর্ধশতাধিক গাড়িযোগে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার উদ্দ্যেশ্যে রওনা দেন। বেলা আড়াইটার দিকে পৌছে পুষ্পস্তবক অপর্নের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এরপর বঙ্গবন্ধুসহ সপরিবারের আত্মার মাগফেরাত, দেশ ও জাতীর সমৃদ্ধিসহ নিজ নির্বাচনী এলাকা হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তির মঙ্গল কামনায় মিলাদ, দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, গাজী মাইনুদ্দিন আওয়ামী লীগের একজন পরিক্ষিত কর্মী। তিনি তৃণমূলের রাজনীতিতে শক্ত ভীত গড়েছেন। তিনি শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদসহ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন। বর্তমানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন। যে পদে তিনি হ্যাট্রিক (তিনবার) করেছেন।

সর্বোপরি গাজী মাইনুদ্দিন একজন জনপ্রিয় নেতা। তিনি তাঁর রাজনৈতিক দায়িত্ব পালনকালে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, পৌরসভা নির্বাচনসহ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের নির্বাচিতকরণে কাজ করেছেন।

যার ফলে বর্তমান সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র এবং উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মধ্য ৯টি ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীরা জনপ্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করছেন।

এ বিষয়ে গাজী মাইনুদ্দিন বলেন, সাধারণ মানুষ আর দলের নেতাকর্মীরাই আমার ভরসাস্থল। তাদের আশা-আকাঙ্খা ও চাহিদার কারণে আগামি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীতার ঘোষণা দিয়েছি। সংসদে যেতে পারলে এলাকার উন্নয়ন করতে পারবো। দলের প্রতি বিশ্বাস এবং আস্থা রেখেই প্রচারণা শুরু করেছি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কাউকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করে রাজনীতি করি না। চেষ্টা করেছি, তাই নিজের যোগ্যতা বলে মানুষের কাছাকাছি যেতে পেরেছি। মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য সীমানা বাড়াতে চাই। সেজন্য মনোনয়ন চাইবো। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত এবং দলীয় সভানেত্রী যে সিদ্ধান্ত দিবেন, তা মাথা পেতে নিবো।

এ সময় তিনি আরো বলেন, আশা করি মনোনয়ন পেলে সকল প্রতিকূলতা পার করে বিজয়ী হতে পারবো। তবে আজকে থেকে আমার এ মিশন শুরু করলাম।