ঢাকা ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাইমচরে নলকূপের পাশ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস’ চলছে রান্নার কাজও

মোঃ সাজ্জাদ হোসেন রনি : হাইমচরে নলকূপের পাশ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস।  উপজেলার ২ নং আলগী উত্তর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে সুমন আখনের বাড়ির নলকূপের পশের মাটি থেকে গত ৭ দিন ধরে এ গ্যাস বের হচ্ছে।  দিয়াশলাই দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিলেই আগুন জলতে থাকে নলকূপের ২পাশের ২টি স্থানে। পলিথিনে করে গ্যাস সংগ্রহ করে ঘরে নিয়ে গ্যাসের চুলায় লাইন দিয়ে রান্নাও করেন বাড়ির মালিক সুমন আখন। এ খবর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসককে অবহিত করা হলে ঘটনাস্থলে গ্যাস বের হওয়া স্থান পরিদর্শন করেন ত্যাল, গ্যাস ও খনিজ অনুসন্ধানমূলক রাষ্ট্রীয় সংস্থা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানী লিমিটেড (বাপেক্স) উপ ব্যাবস্থাপক সালেহ আহম্মেদ, আলমগীর কবির,উপ ব্যবস্থাপক বাকরাবাদ, গ্যাস  চাঁদপুর ইন্জিনিয়ার মোঃ জাকারী।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ২নং আলগী উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান পাটোয়ারী, উপজেলা প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক সাহেদ হোসেন দিপু।
বাপেক্স ব্যবস্থাপক ছালে আহমেদ বলেন, এখানে মাটি থেকে গ্যাস উঠতেছে এমন একটি এপ্লিকেশন করা হয়েছিল জেলা প্রশাসকের নিকট। আমরা গ্যাস বের হওয়ার সংবাদ পেয়ে তা দেখতে এসেছি। আমরা এসে এখন আগে যেমন ছিল তেমন বেশি গ্যাশ দেখতে পারছিনা। এখানে গ্যাসের পেশার একেবারেই কম থাকায় গ্যাস নেয়া যাচ্ছে না। স্যাম্পলের জন্য গ্যাস নিয়ে গেলে হয়তো পরিক্ষা করে দেখা যেত এটা কোন ধরনের গ্যাস। আমরা এখানে আসলাম লোকজনকে সাবদান করে তাদের করনীয় বিষয়ে অবগত করে গেলাম।
বাড়ির মালিক সুমন আখন জানান, গত ৩ মাস পূর্বে এখানে নলকূপ বসাতে গেলে গ্যাস উঠায় কলটি বসাতে পারে না। পরে অন্য আরেকটি যায়গায় কল বসাতে গেলে সেখানেও পাইপ নিছ থেকে উপরে উঠে আসে। তখন নলকূপ বসানো শ্রমীকরা অন্যত্র সরিয়ে নলকূপ বসিয়ে যায়। নলকূপ বসানোর পর থেকেই কলের চারো পাশে মাটি বিতর থেকে বুদবুদ উঠে। গত কয়েক দিন আগে বুদবুদ করা স্থানে দিয়াশলাই দিয়ে আগুন দিলে আগুন জলতে থাকে। আমি এক ফুট সাইজের পাইপ মাটিতে ডুকিয়ে পলিথিনে গ্যাস ভরে পলিথিন থেকে পাইপের মাধ্যমে গ্যাসের চুলায় লাইন দিয়ে রান্নাও করেছি। আমার ধারনা গভীরে পাইপ বসালে গ্যাসের পেশার বাড়বে এবং সেই গ্যাস কাজে আসবে। আমাকে ওনারা এসে গ্যাস ব্যবহার না করার জন্য বলে গেছে। আমাকে প্রশাসন অনুমতি দিলে এখান থেকে গ্যাস বের করে রান্নার কাজে ব্যবহার করতে পারি।
পাশ্ববর্তী লোকজন জানান, কয়েকদিন ধরেই এবাড়িতে নলকূপের পাশে কয়েকটি স্থানে আগুন দিলেই জলতে থাকে। আমরা প্রায় সময়ই দেখি এখানে অলোকিক ভাবে আগুন জলে। ভাল ভাবে পরিক্ষা নিরিক্ষা করলে এখানে বড় ধরনের গ্যাসের  সন্ধান পাওয়া যাবে বলে তারা মনে করেন।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

হাইমচরে নলকূপের পাশ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস’ চলছে রান্নার কাজও

আপডেট সময় : ০১:৩৪:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ মার্চ ২০২২
মোঃ সাজ্জাদ হোসেন রনি : হাইমচরে নলকূপের পাশ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস।  উপজেলার ২ নং আলগী উত্তর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে সুমন আখনের বাড়ির নলকূপের পশের মাটি থেকে গত ৭ দিন ধরে এ গ্যাস বের হচ্ছে।  দিয়াশলাই দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিলেই আগুন জলতে থাকে নলকূপের ২পাশের ২টি স্থানে। পলিথিনে করে গ্যাস সংগ্রহ করে ঘরে নিয়ে গ্যাসের চুলায় লাইন দিয়ে রান্নাও করেন বাড়ির মালিক সুমন আখন। এ খবর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসককে অবহিত করা হলে ঘটনাস্থলে গ্যাস বের হওয়া স্থান পরিদর্শন করেন ত্যাল, গ্যাস ও খনিজ অনুসন্ধানমূলক রাষ্ট্রীয় সংস্থা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানী লিমিটেড (বাপেক্স) উপ ব্যাবস্থাপক সালেহ আহম্মেদ, আলমগীর কবির,উপ ব্যবস্থাপক বাকরাবাদ, গ্যাস  চাঁদপুর ইন্জিনিয়ার মোঃ জাকারী।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ২নং আলগী উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান পাটোয়ারী, উপজেলা প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক সাহেদ হোসেন দিপু।
বাপেক্স ব্যবস্থাপক ছালে আহমেদ বলেন, এখানে মাটি থেকে গ্যাস উঠতেছে এমন একটি এপ্লিকেশন করা হয়েছিল জেলা প্রশাসকের নিকট। আমরা গ্যাস বের হওয়ার সংবাদ পেয়ে তা দেখতে এসেছি। আমরা এসে এখন আগে যেমন ছিল তেমন বেশি গ্যাশ দেখতে পারছিনা। এখানে গ্যাসের পেশার একেবারেই কম থাকায় গ্যাস নেয়া যাচ্ছে না। স্যাম্পলের জন্য গ্যাস নিয়ে গেলে হয়তো পরিক্ষা করে দেখা যেত এটা কোন ধরনের গ্যাস। আমরা এখানে আসলাম লোকজনকে সাবদান করে তাদের করনীয় বিষয়ে অবগত করে গেলাম।
বাড়ির মালিক সুমন আখন জানান, গত ৩ মাস পূর্বে এখানে নলকূপ বসাতে গেলে গ্যাস উঠায় কলটি বসাতে পারে না। পরে অন্য আরেকটি যায়গায় কল বসাতে গেলে সেখানেও পাইপ নিছ থেকে উপরে উঠে আসে। তখন নলকূপ বসানো শ্রমীকরা অন্যত্র সরিয়ে নলকূপ বসিয়ে যায়। নলকূপ বসানোর পর থেকেই কলের চারো পাশে মাটি বিতর থেকে বুদবুদ উঠে। গত কয়েক দিন আগে বুদবুদ করা স্থানে দিয়াশলাই দিয়ে আগুন দিলে আগুন জলতে থাকে। আমি এক ফুট সাইজের পাইপ মাটিতে ডুকিয়ে পলিথিনে গ্যাস ভরে পলিথিন থেকে পাইপের মাধ্যমে গ্যাসের চুলায় লাইন দিয়ে রান্নাও করেছি। আমার ধারনা গভীরে পাইপ বসালে গ্যাসের পেশার বাড়বে এবং সেই গ্যাস কাজে আসবে। আমাকে ওনারা এসে গ্যাস ব্যবহার না করার জন্য বলে গেছে। আমাকে প্রশাসন অনুমতি দিলে এখান থেকে গ্যাস বের করে রান্নার কাজে ব্যবহার করতে পারি।
পাশ্ববর্তী লোকজন জানান, কয়েকদিন ধরেই এবাড়িতে নলকূপের পাশে কয়েকটি স্থানে আগুন দিলেই জলতে থাকে। আমরা প্রায় সময়ই দেখি এখানে অলোকিক ভাবে আগুন জলে। ভাল ভাবে পরিক্ষা নিরিক্ষা করলে এখানে বড় ধরনের গ্যাসের  সন্ধান পাওয়া যাবে বলে তারা মনে করেন।