ঢাকা ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপুরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, ১১টি ড্রেজার-বাল্কহেড জব্দ সহ আটক ২১

চাঁদপুর পদ্মা-মেঘনায় অভিযান শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। নদী রক্ষা কমিশনের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) সকাল ৮টায় অভিযান শুরু হয়। এ অভিযানে অংশ নিয়েছে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, নৌপুলিশ, কোস্টগার্ডসহ সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তা ও সদস্যরা। প্রথম দিনের অভিযানে তিনটি ড্রেজার ও আটটি বালু পরিবহনকারী বাল্কহেড জব্দ করার খবর পাওয়া গেছে।

Model Hospital

মতলবে নদী ঘুরে দেখা গেছে, বেশ কিছু বাল্কহেড বালু ভর্তি করে নিয়ে যাচ্ছে। আবার কোথাও কোথাও নদী তীরে নোঙর করে রাখা হয়েছে বিপুল সংখ্যক বাল্কহেড। অভিযানের খবর পেয়ে বেশিরভাগ ড্রেজার উধাও হয়ে গেছে।

নৌপুলিশের এসআই জহিরুল ইসলাম জানান, এ পর্যন্ত ড্রেজার তিনটি এবং বাল্কহেড আটটি জব্দ করা হয়েছে। এসব নৌযান থেকে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

নৌপুলিশের চাঁদপুর অঞ্চলের এসপি মো. কামরুজ্জামান বলেন, সকাল ৮টা থেকে অভিযান শুরু হয়। যেসব ড্রেজার ও বাল্কহেডের রেজিস্ট্রেশন নেই, সেগুলো জব্দ করা হচ্ছে। অভিযান চলমান রয়েছে।

সদর উপজেলার এসি ল্যান্ড মুহাম্মদ হেলাল চৌধুরী বলেন, এখনও অভিযান শেষ হয়নি। যেসব অবৈধ নৌ-যান জব্দ করা হবে, সেগুলো নৌপুলিশকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। নৌ-পুলিশকে আমরা চিঠি দিয়েছি। তারা এ অভিযান অব্যাহত রাখবে।

এ বিষয়ে চাঁদপুর নৌ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ বেলায়েত হোসেন বলেন, জেলা প্রশাসন, নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ডের যৌথ অভিযানে ৯টি বাল্কহেড ও ৩ টি ড্রেজার ২০ জন লোককে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হইবে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, ১১টি ড্রেজার-বাল্কহেড জব্দ সহ আটক ২১

আপডেট সময় : ০৩:৪০:২৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ ২০২২

চাঁদপুর পদ্মা-মেঘনায় অভিযান শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। নদী রক্ষা কমিশনের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) সকাল ৮টায় অভিযান শুরু হয়। এ অভিযানে অংশ নিয়েছে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, নৌপুলিশ, কোস্টগার্ডসহ সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তা ও সদস্যরা। প্রথম দিনের অভিযানে তিনটি ড্রেজার ও আটটি বালু পরিবহনকারী বাল্কহেড জব্দ করার খবর পাওয়া গেছে।

Model Hospital

মতলবে নদী ঘুরে দেখা গেছে, বেশ কিছু বাল্কহেড বালু ভর্তি করে নিয়ে যাচ্ছে। আবার কোথাও কোথাও নদী তীরে নোঙর করে রাখা হয়েছে বিপুল সংখ্যক বাল্কহেড। অভিযানের খবর পেয়ে বেশিরভাগ ড্রেজার উধাও হয়ে গেছে।

নৌপুলিশের এসআই জহিরুল ইসলাম জানান, এ পর্যন্ত ড্রেজার তিনটি এবং বাল্কহেড আটটি জব্দ করা হয়েছে। এসব নৌযান থেকে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

নৌপুলিশের চাঁদপুর অঞ্চলের এসপি মো. কামরুজ্জামান বলেন, সকাল ৮টা থেকে অভিযান শুরু হয়। যেসব ড্রেজার ও বাল্কহেডের রেজিস্ট্রেশন নেই, সেগুলো জব্দ করা হচ্ছে। অভিযান চলমান রয়েছে।

সদর উপজেলার এসি ল্যান্ড মুহাম্মদ হেলাল চৌধুরী বলেন, এখনও অভিযান শেষ হয়নি। যেসব অবৈধ নৌ-যান জব্দ করা হবে, সেগুলো নৌপুলিশকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। নৌ-পুলিশকে আমরা চিঠি দিয়েছি। তারা এ অভিযান অব্যাহত রাখবে।

এ বিষয়ে চাঁদপুর নৌ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ বেলায়েত হোসেন বলেন, জেলা প্রশাসন, নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ডের যৌথ অভিযানে ৯টি বাল্কহেড ও ৩ টি ড্রেজার ২০ জন লোককে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হইবে।