ঢাকা ০৪:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কচুয়াতে সীমিত পরিসরে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত

মো. রাছেল : কচুয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রীশ্রী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে । করোনা পরিস্থিতির কারণে কচুয়া উপজেলায় সীমিত পরিসরে বিদ্যা, বাণী আর সুরের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার মাঘ মাসের পঞ্চমী তিথিতে শুভ্র রাজহংসে চেপে দেবী সরস্বতী এসেছেন মর্ত্যলোকে। সনাতন ধর্মীয় রীতিতে প্রত্যুষে দেবীকে দুধ, মধু, দই, ঘি, কর্পূর, চন্দন দিয়ে স্নান করানো হয়।

Model Hospital

কচুয়া উপজেলায় প্রায় ২শতাধিক টি স্থানে সর্বজনীনভাবে এবং বাড়ি বাড়িতে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সরস্বতী দেবীর বাণী-অর্চনা করার মাধ্যমে পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে চাঁদপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে, পৌরসভার কোয়া পোদ্দার বাড়ির দূর্গা মন্দিরে নবোদয় সংঘের উদ্যোগে , কড়ইয়া দূর্গা মন্দিরে, করইশ দূর্গা মন্দির, পলাশপুর পূজামণ্ডপে সরস্বতী মায়ের চরণে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করেন ভক্তরা।

এ সময় পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্রে করোনা থেকে মুক্তির পাশাপাশি দেশ ও জাতির কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করা হয়েছে । পুরোহিতরা ‘সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমল লোচনে/ বিশ্বরূপে বিশালাী বিদ্যংদেহী নমোহস্তুতে মন্ত্রে বিদ্যার দেবী সরস্বতীর আরাধনা ও পূজার আচার পালন করেন। দেবী খুশি হলে বিদ্যা ও বুদ্ধি অর্জিত হবে এই বিশ্বাসে ভক্তরা পুষ্পাঞ্জলি দেন। অজ্ঞতার অন্ধকার দূর করতে কল্যাণময়ী দেবীর পাদপদ্মে প্রণতি জানান তারা। পূজা চলাকালীন উলু ও শঙ্খধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে প্রতিটি পূজামণ্ডপ।

সুজয়ী পোদ্দার নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘মা সরস্বতী বিদ্যার দেবী। পড়াশোনার পাশাপাশি আমরা যেন ভালোমতো সাহিত্য, সংস্কৃতিচর্চা শুদ্ধভাবে করতে পারি, মা আমাদের সেই আশীর্বাদ করুক এই কামনা করেছি।’

চাঁদপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে পূজা মন্ডপে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা হিন্দুু বৌদ্ধ খ্রিষ্ট্রান ঐক্য পরিষদের সভাপতি প্রাণধন দেব, সাধারণ সম্পাদক প্রিয়তুষ পোদ্দার, পূজা উদযাপনের উপদেষ্টা সনতুষ চন্দ্র সেন,পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ফনী ভূষন মজুমদার তাপু, সাধারন সম্পাদক বিকাশ সাহা,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহাগ মজুমদার প্রমুখ ।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ক্যাব চাঁদপুরের আয়োজনে বাজার পরিস্থিতি ও নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক মত বিনিময় সভা

কচুয়াতে সীমিত পরিসরে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় : ১২:৪৬:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২২

মো. রাছেল : কচুয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রীশ্রী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে । করোনা পরিস্থিতির কারণে কচুয়া উপজেলায় সীমিত পরিসরে বিদ্যা, বাণী আর সুরের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার মাঘ মাসের পঞ্চমী তিথিতে শুভ্র রাজহংসে চেপে দেবী সরস্বতী এসেছেন মর্ত্যলোকে। সনাতন ধর্মীয় রীতিতে প্রত্যুষে দেবীকে দুধ, মধু, দই, ঘি, কর্পূর, চন্দন দিয়ে স্নান করানো হয়।

Model Hospital

কচুয়া উপজেলায় প্রায় ২শতাধিক টি স্থানে সর্বজনীনভাবে এবং বাড়ি বাড়িতে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সরস্বতী দেবীর বাণী-অর্চনা করার মাধ্যমে পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে চাঁদপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে, পৌরসভার কোয়া পোদ্দার বাড়ির দূর্গা মন্দিরে নবোদয় সংঘের উদ্যোগে , কড়ইয়া দূর্গা মন্দিরে, করইশ দূর্গা মন্দির, পলাশপুর পূজামণ্ডপে সরস্বতী মায়ের চরণে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করেন ভক্তরা।

এ সময় পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্রে করোনা থেকে মুক্তির পাশাপাশি দেশ ও জাতির কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করা হয়েছে । পুরোহিতরা ‘সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমল লোচনে/ বিশ্বরূপে বিশালাী বিদ্যংদেহী নমোহস্তুতে মন্ত্রে বিদ্যার দেবী সরস্বতীর আরাধনা ও পূজার আচার পালন করেন। দেবী খুশি হলে বিদ্যা ও বুদ্ধি অর্জিত হবে এই বিশ্বাসে ভক্তরা পুষ্পাঞ্জলি দেন। অজ্ঞতার অন্ধকার দূর করতে কল্যাণময়ী দেবীর পাদপদ্মে প্রণতি জানান তারা। পূজা চলাকালীন উলু ও শঙ্খধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে প্রতিটি পূজামণ্ডপ।

সুজয়ী পোদ্দার নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘মা সরস্বতী বিদ্যার দেবী। পড়াশোনার পাশাপাশি আমরা যেন ভালোমতো সাহিত্য, সংস্কৃতিচর্চা শুদ্ধভাবে করতে পারি, মা আমাদের সেই আশীর্বাদ করুক এই কামনা করেছি।’

চাঁদপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে পূজা মন্ডপে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা হিন্দুু বৌদ্ধ খ্রিষ্ট্রান ঐক্য পরিষদের সভাপতি প্রাণধন দেব, সাধারণ সম্পাদক প্রিয়তুষ পোদ্দার, পূজা উদযাপনের উপদেষ্টা সনতুষ চন্দ্র সেন,পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ফনী ভূষন মজুমদার তাপু, সাধারন সম্পাদক বিকাশ সাহা,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহাগ মজুমদার প্রমুখ ।