ঢাকা ০৭:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজিগঞ্জে সম্পত্তিগত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ নারী আহত

এইচ.এম নিজাম : চাঁদপুরের হাজিগঞ্জে সম্পত্তিগত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ নারী আহত হয়েছে।
৪ জানুয়ারি শুক্রবার সকালে উপজেলার ১নং রাজারগাঁও ইউনিয়নের পশ্চিম রাজারগাঁও বিরন বেপারী বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

Model Hospital

আহতরা হলেন, বেপারি বাড়ির তাফাজ্জল হোসেন বেপারীর স্ত্রী শাহনাজ বেগম (৪০), মেয়ে সারমীন বেগম (২৩), আইরিন (১৮) ও লাবনী (১৬)। ত্রিফল নাইনে খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

আহতরা বর্তমানে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এই ঘটনায় অপর পক্ষ থেকেও তাসলিমা বেগম (৩২) নামে এক নারী আহত হয়েছে বলে জানানো হয়।

আহত তাফাজ্জল হোসেন বেপারীর স্ত্রী শাহনাজ বেগম জানান, শুক্রবার সকালে প্রতিবেশী সিরাজ বেপারীর স্ত্রী তাছলিমা বেগম (৩২) তার আত্মীয়দের নিয়ে আমাদের বাড়ির বাউন্ডারী বেড়া ভেঙ্গে ফেলে। আমি বাধা দিতে গেলে, তাছলিমা বেগম, সেলিম বেপারী, মোস্তফা বেপারী, ইশা বেপারী, মুসা বেপারী, শিখা ও শ্রাবণীসহ বেশ কয়েকজন মিলে আমার উপর হামলা করে।

এসময় আমাকে বাঁচাতে স্কুল পড়ুয়া ছোট মেয়ে এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করে। খবর পেয়ে আমার বড় দুই মেয়ে শ্বশুর-বাড়ি থেকে ছুটে আসলে উল্লেখিতরা তাদেরকেও ব্যাপকভাবে পিটিয়ে আহত করে এবং আমাদের বসত ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে।

শাহনাজ বেগমের বড় মেয়ে শারমিন বেগম বলেন, প্রতিবেশী সিরাজ বেপারীর লোকজন আমাদের জমি দখল করতে বিভিন্ন সময় আমাদের ওপর হামলা করে। আমরা আদালতে বেশ কয়েকটি মামলা করেছি। কিছুদিন আগে আদালত থেকে বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য রাজারগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহেবকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাদেরকে বসার জন্য কয়েকবার নোটিশ করেছে। কিন্তু তারা পুলিশ, আদালত এবং চেয়ারম্যানসহ কাউকেই পাত্তা দিচ্ছে না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত পরিবারের দুই বোন শিখা ও শ্রাবনী জানান, তারা আমাদের জায়গায় বেড়া দিচ্ছিলো। আমার মা তাছলিমা বেগম বাধা দেয়। এসময় তারা বহিরাগত লোকদের নিয়ে আমার মাকে মার ধর করে। খবর পেয়ে আমার চাচা ও চাচাতো ভাইরা ছুটে এলে তাদের চোখেমুখে মরিচ গুড়া ঢেলে দেয়।

শাহনাজ বেগমকে রক্তাক্ত জখম করার বিষয়ে তারা বলেন, তারা মামলা করার জন্য নিজেরা মুখে রঙ দিয়ে নাটক সাজিয়েছে। উল্লেখিতরাই হামলা এবং ভাংচুর করেছে।

হাজিগঞ্জ থানার এসআই জয়নাল আবেদীন জানান, ট্রিপল নাইনে ফোন পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। উভয় পক্ষকে শান্ত করেছি। তাদের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

উদয়ন প্রিমিয়ার লীগ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পূর্ণ

হাজিগঞ্জে সম্পত্তিগত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ নারী আহত

আপডেট সময় : ০২:১৭:২৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২২
এইচ.এম নিজাম : চাঁদপুরের হাজিগঞ্জে সম্পত্তিগত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ নারী আহত হয়েছে।
৪ জানুয়ারি শুক্রবার সকালে উপজেলার ১নং রাজারগাঁও ইউনিয়নের পশ্চিম রাজারগাঁও বিরন বেপারী বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

Model Hospital

আহতরা হলেন, বেপারি বাড়ির তাফাজ্জল হোসেন বেপারীর স্ত্রী শাহনাজ বেগম (৪০), মেয়ে সারমীন বেগম (২৩), আইরিন (১৮) ও লাবনী (১৬)। ত্রিফল নাইনে খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

আহতরা বর্তমানে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এই ঘটনায় অপর পক্ষ থেকেও তাসলিমা বেগম (৩২) নামে এক নারী আহত হয়েছে বলে জানানো হয়।

আহত তাফাজ্জল হোসেন বেপারীর স্ত্রী শাহনাজ বেগম জানান, শুক্রবার সকালে প্রতিবেশী সিরাজ বেপারীর স্ত্রী তাছলিমা বেগম (৩২) তার আত্মীয়দের নিয়ে আমাদের বাড়ির বাউন্ডারী বেড়া ভেঙ্গে ফেলে। আমি বাধা দিতে গেলে, তাছলিমা বেগম, সেলিম বেপারী, মোস্তফা বেপারী, ইশা বেপারী, মুসা বেপারী, শিখা ও শ্রাবণীসহ বেশ কয়েকজন মিলে আমার উপর হামলা করে।

এসময় আমাকে বাঁচাতে স্কুল পড়ুয়া ছোট মেয়ে এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করে। খবর পেয়ে আমার বড় দুই মেয়ে শ্বশুর-বাড়ি থেকে ছুটে আসলে উল্লেখিতরা তাদেরকেও ব্যাপকভাবে পিটিয়ে আহত করে এবং আমাদের বসত ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে।

শাহনাজ বেগমের বড় মেয়ে শারমিন বেগম বলেন, প্রতিবেশী সিরাজ বেপারীর লোকজন আমাদের জমি দখল করতে বিভিন্ন সময় আমাদের ওপর হামলা করে। আমরা আদালতে বেশ কয়েকটি মামলা করেছি। কিছুদিন আগে আদালত থেকে বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য রাজারগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহেবকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাদেরকে বসার জন্য কয়েকবার নোটিশ করেছে। কিন্তু তারা পুলিশ, আদালত এবং চেয়ারম্যানসহ কাউকেই পাত্তা দিচ্ছে না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত পরিবারের দুই বোন শিখা ও শ্রাবনী জানান, তারা আমাদের জায়গায় বেড়া দিচ্ছিলো। আমার মা তাছলিমা বেগম বাধা দেয়। এসময় তারা বহিরাগত লোকদের নিয়ে আমার মাকে মার ধর করে। খবর পেয়ে আমার চাচা ও চাচাতো ভাইরা ছুটে এলে তাদের চোখেমুখে মরিচ গুড়া ঢেলে দেয়।

শাহনাজ বেগমকে রক্তাক্ত জখম করার বিষয়ে তারা বলেন, তারা মামলা করার জন্য নিজেরা মুখে রঙ দিয়ে নাটক সাজিয়েছে। উল্লেখিতরাই হামলা এবং ভাংচুর করেছে।

হাজিগঞ্জ থানার এসআই জয়নাল আবেদীন জানান, ট্রিপল নাইনে ফোন পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। উভয় পক্ষকে শান্ত করেছি। তাদের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে।