ঢাকা ১১:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাহমাহমুদপুরে ইউপি সচিব ফজলুল হকের বদলি নিয়ে তালবাহানার অভিযোগ

শাহমাহমুদপুর যোগদানকৃত সচিব এম এ কুদ্দুছ রোকন শনিবার দাপ্তরিক কাজ করতে এসে তার কক্ষে তালা পরিবর্তের দেখে কাজ না করে এভাবেই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহমাহমুদপুরের সদ্য বদলিকৃত ইউপি সচিব ফজলুল হক গাজীর বদলির পর থেকেই নানাহ প্রন্থা অবলম্বন করে স্বকর্মস্থলে থাকার চেষ্টা করছে। জেলা প্রশাসক কয়েকদিন পূর্বে সচিবদের রতবদল করেন। শাহশাহমুদপুরের সদ্য বদলিকৃত সচিবকে হানারচরে আর হানারচরের সচিবকে শাহশাহমুদপুরে দেন।
শাহমাহমুদপুরে যোগদানকৃত সচিব এম এ কুদ্দুছ রোকন শনিবার দাপ্তরিক কাজ করার জন্য পরিষদে আসেন, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটার অফিসে এসে সচিবের কক্ষের তালা খুলতে গিয়ে ভিভ্রান্তিতে পড়তে হয়। অনেক চেষ্টার পর তালা না খুলতে পেরে সদ্য বদলিকৃত সচিব ফজলুল হক গাজীকে ফোন করলে তিনি তালা পরিবর্তন করে রাখার কথা স্বীকার করেন, এখন প্রশ্ন হচ্ছে, সরকারি চাকরি বদলি জনিত, চাকরি করলে বদলি হতে হবেই অনিবার্য। সদ্য বদলিকৃত সচিব ফজলুল হক গাজী, সকলের অজান্তে কেন তিনি নিজের কক্ষের তালা পরিবর্তন করে রেখেছেন, তার বদলি কি তিনি মানছেন না, নাকি অন্যকোন কারন রয়েছে, এ ধরনের নানাহ প্রশ্ন সকলের মাঝে ঘুরপাক খাচ্ছে।
শাহমাহমুদপুরের সাধারণ সদস্য নাজির হোসেন ও ইব্রাহীম তালুকদার বলেন, এটা নজিরবিহীন, পরিষদে সচিবের কক্ষে সকলের অজান্তে তালা পরিবর্তন এটা খুব দুঃখ্য জনক, সরকারি চাকরি বদলি অনিবার্য, চাকরি করলে বদলি হতেই হবে, কেন ফজলুল হক এত তালবাহানা করছে, পরিষদের কার্যক্রমের ব্যাঘাত করছে এটা সকলের অজানা।
শাহমাহমুদপুরের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটার আবুল হোসেন বলেন, সচিব ফজলুল হক যে তার কক্ষের তালা পরিবর্তন করে রেখেছে, সে বিষয়ে তাকে ও অবগত করেনি।
এ বিষয়ে ফজলুল হক গাজীর কাছে জানতে চাইলে তিনি তার কক্ষের তালা পরিবর্তন করে রাখার কথা স্বীকার করেন। তিনি গত ২৬ ডিসেম্বর থেকে শারীরিকভাবে অসুস্থ্য।
এদিকে সরজমিনে শনিবার পরিষদে গেলে অনেকেই দেখা যায়, পরিষদে সচিব না থাকার কারনে জন্মনিবন্ধন, মৃত্যু সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন কাজ করতে এসে ফেরত যান। শাহমাহমুদপুরের যোগদানকৃত ইউপি সচিব এমএ কুদ্দুছ রোকন বলেন, আমি প্রশাসনের আদশকে সম্মান দিয়ে এ পরিষদে যোগদান করার জন্য এসেছি, কিন্তু বর্তমান সচিব আমাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে না দিয়ে তালবাহানা করছে।
ট্যাগস :

শাহমাহমুদপুরে ইউপি সচিব ফজলুল হকের বদলি নিয়ে তালবাহানার অভিযোগ

আপডেট সময় : ০১:২২:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জানুয়ারী ২০২২
স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহমাহমুদপুরের সদ্য বদলিকৃত ইউপি সচিব ফজলুল হক গাজীর বদলির পর থেকেই নানাহ প্রন্থা অবলম্বন করে স্বকর্মস্থলে থাকার চেষ্টা করছে। জেলা প্রশাসক কয়েকদিন পূর্বে সচিবদের রতবদল করেন। শাহশাহমুদপুরের সদ্য বদলিকৃত সচিবকে হানারচরে আর হানারচরের সচিবকে শাহশাহমুদপুরে দেন।
শাহমাহমুদপুরে যোগদানকৃত সচিব এম এ কুদ্দুছ রোকন শনিবার দাপ্তরিক কাজ করার জন্য পরিষদে আসেন, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটার অফিসে এসে সচিবের কক্ষের তালা খুলতে গিয়ে ভিভ্রান্তিতে পড়তে হয়। অনেক চেষ্টার পর তালা না খুলতে পেরে সদ্য বদলিকৃত সচিব ফজলুল হক গাজীকে ফোন করলে তিনি তালা পরিবর্তন করে রাখার কথা স্বীকার করেন, এখন প্রশ্ন হচ্ছে, সরকারি চাকরি বদলি জনিত, চাকরি করলে বদলি হতে হবেই অনিবার্য। সদ্য বদলিকৃত সচিব ফজলুল হক গাজী, সকলের অজান্তে কেন তিনি নিজের কক্ষের তালা পরিবর্তন করে রেখেছেন, তার বদলি কি তিনি মানছেন না, নাকি অন্যকোন কারন রয়েছে, এ ধরনের নানাহ প্রশ্ন সকলের মাঝে ঘুরপাক খাচ্ছে।
শাহমাহমুদপুরের সাধারণ সদস্য নাজির হোসেন ও ইব্রাহীম তালুকদার বলেন, এটা নজিরবিহীন, পরিষদে সচিবের কক্ষে সকলের অজান্তে তালা পরিবর্তন এটা খুব দুঃখ্য জনক, সরকারি চাকরি বদলি অনিবার্য, চাকরি করলে বদলি হতেই হবে, কেন ফজলুল হক এত তালবাহানা করছে, পরিষদের কার্যক্রমের ব্যাঘাত করছে এটা সকলের অজানা।
শাহমাহমুদপুরের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটার আবুল হোসেন বলেন, সচিব ফজলুল হক যে তার কক্ষের তালা পরিবর্তন করে রেখেছে, সে বিষয়ে তাকে ও অবগত করেনি।
এ বিষয়ে ফজলুল হক গাজীর কাছে জানতে চাইলে তিনি তার কক্ষের তালা পরিবর্তন করে রাখার কথা স্বীকার করেন। তিনি গত ২৬ ডিসেম্বর থেকে শারীরিকভাবে অসুস্থ্য।
এদিকে সরজমিনে শনিবার পরিষদে গেলে অনেকেই দেখা যায়, পরিষদে সচিব না থাকার কারনে জন্মনিবন্ধন, মৃত্যু সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন কাজ করতে এসে ফেরত যান। শাহমাহমুদপুরের যোগদানকৃত ইউপি সচিব এমএ কুদ্দুছ রোকন বলেন, আমি প্রশাসনের আদশকে সম্মান দিয়ে এ পরিষদে যোগদান করার জন্য এসেছি, কিন্তু বর্তমান সচিব আমাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে না দিয়ে তালবাহানা করছে।