ঢাকা ০১:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে শারদীয় দূর্গোৎসবের অপেক্ষায় ৩৪ পুজামন্ডপ

আর মাত্র একদিন বাকী। তারপর শুরু হবে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গোৎসব। ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ হয়েছে।

Model Hospital

আসছে ২০ অক্টোবর, সারাদেশের ন্যায় মতলব উত্তর উপজেলায় ১টি পৌরসভা এবং ১৪ টি ইউনিয়নে ৩৪টি পুজামন্ডবে দূর্গোৎসব শুরু হতে যাচ্ছে। ফলে উপজেলায় সর্বত্রই বিরাজ করছে শারদীয় দূর্গাপুজার ব্যাপক আনন্দ উৎসব। যা ২৪ অক্টোবর, প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে তা সমাপ্তি ঘটবে।

জানা গেছে, হিন্দু সম্প্রদায়ের দূর্গোৎসব আবহমান বাংলার শ্বাশত সংস্কৃতির অংশ হিসেবে এবার মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভায় ২টি, গজরা ইউনিয়নে ৩টি, সুলতানাবাদ ইউনিয়নে ৬টি, সাদুল্ল্যাপুর ইউনিয়নে ১টি, বাগানবাড়ি ইউনিয়নে ৫টি, ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নে ৩টি, ইসলামাবাদ ইউনিয়নে ৭টি, দূর্গাপুর ইউনিয়নে ৬টি, মোহনপুর ইউনিয়নে ১টি পুজামন্ডপ রয়েছে।

মন্ডপগুলো হলো ছেঙ্গারচর কাঁলাচাঁদ আখড়া, বিষ্ণুচন্দ্র দত্তবাড়ি দুর্গা মন্দির, রঘুনাথপুর সরকার বাড়ি দুর্গা মন্দির, রাধেশ্যাম দুর্গা বাড়ি দুর্গা মন্দির, জহরলাল দুর্গা বাড়ি দুর্গা মন্দির, ধীরেন্দ্র মাস্টার বাড়ি দুর্গা মন্দির, দুর্গাপুর গনেশ দাসের বাড়ি দুর্গা মন্দির, শুকলাল মাস্টার বাড়ি দুর্গা মন্দির, নান্দুর কান্দি হাওলাদার বাড়ি দুর্গা মন্দির, গজরা সার্বজনীন দুর্গা মন্দির, স্বর্গীয় জীবন ঘোষের বাড়ি দুর্গা মন্দির, হারাধন রায়ের বাড়ি, শ্যামাচরণের বাড়ি, চরপাথালিয়া প্রানকৃষ্ণ দাস বাড়ি দুর্গা মন্দির, হরগৌরি শ্মশান সংলগ্ন দুর্গা মন্দির, জলধর দাস বাড়ি দুর্গা মন্দির, অমৃত লাল নাগ অতুল বেপারী বাড়ি দুর্গা মন্দির, মধ্যম ডালিম খা সরকার বাড়ি দুর্গা মন্দির, স্বর্গীয় সুকুমার লাল বাড়ি দুর্গা মন্দির, অতুল চন্দ্র অধিকার বাড়ি দুর্গা মন্দির, তিতার কান্দি ঘোষ বাড়ি দুর্গা মন্দির, স্বর্গীয় কামিলিচরণ মন্ডল বাড়ি দুর্গা মন্দির, আনার পুর হিন্দু বাড়ি দুর্গা মন্দির, দুর্গাপুর আশ্রয় কেন্দ্র দুর্গা মন্দির, গজরা মনোরঞ্জন বনিকের বাড়ি দুর্গা মন্দির, ধনাগোদা রায়েরকান্দি শ্মশান দুর্গা মন্দির, জ্যোতি লাল মাস্টার বাড়ি দুর্গা মন্দির, মোহনপুর দুর্গা মন্দির, নান্দুরকান্দি কালিবাড়ী দুর্গা মন্দির, বড়ুরকান্দি দুর্গা মন্দির।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মতলব উত্তর উপজেলার শাখার সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাস বলেন, আগামী শুক্রবার (২০ অক্টোবর) ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে দূর্গা পূজা শুরু হবে। আগামী মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) দশমী ও বিসর্জনের মাধ্যমে শারদীয় পূজা সমাপ্ত হবে।

ছেংগারচর কালাচাঁদ আখড়া বাড়ির শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দিরের সভাপতি শ্যামল কুমার বাড়ৈ বলেন, বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মহিউদ্দিন বলেন, উপজেলার ৩৪টি পুজামন্ডপের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান বলেন, প্রতিটি পূজামন্ডপে কঠোর নিরাপত্তা জোরদার করা হবে। সব পূজামন্ডপে পুলিশ, আনসার নিয়োগের পাশাপাশি ব্যার বাহিনী টহল দিবেন। এছাড়াও ঝুঁকিপূর্র্ণ পূজামন্ডপে বিশেষ নজর রাখা হবে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ক্যাব চাঁদপুরের আয়োজনে বাজার পরিস্থিতি ও নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক মত বিনিময় সভা

মতলব উত্তরে শারদীয় দূর্গোৎসবের অপেক্ষায় ৩৪ পুজামন্ডপ

আপডেট সময় : ১০:২৯:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০২৩

আর মাত্র একদিন বাকী। তারপর শুরু হবে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গোৎসব। ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ হয়েছে।

Model Hospital

আসছে ২০ অক্টোবর, সারাদেশের ন্যায় মতলব উত্তর উপজেলায় ১টি পৌরসভা এবং ১৪ টি ইউনিয়নে ৩৪টি পুজামন্ডবে দূর্গোৎসব শুরু হতে যাচ্ছে। ফলে উপজেলায় সর্বত্রই বিরাজ করছে শারদীয় দূর্গাপুজার ব্যাপক আনন্দ উৎসব। যা ২৪ অক্টোবর, প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে তা সমাপ্তি ঘটবে।

জানা গেছে, হিন্দু সম্প্রদায়ের দূর্গোৎসব আবহমান বাংলার শ্বাশত সংস্কৃতির অংশ হিসেবে এবার মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভায় ২টি, গজরা ইউনিয়নে ৩টি, সুলতানাবাদ ইউনিয়নে ৬টি, সাদুল্ল্যাপুর ইউনিয়নে ১টি, বাগানবাড়ি ইউনিয়নে ৫টি, ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নে ৩টি, ইসলামাবাদ ইউনিয়নে ৭টি, দূর্গাপুর ইউনিয়নে ৬টি, মোহনপুর ইউনিয়নে ১টি পুজামন্ডপ রয়েছে।

মন্ডপগুলো হলো ছেঙ্গারচর কাঁলাচাঁদ আখড়া, বিষ্ণুচন্দ্র দত্তবাড়ি দুর্গা মন্দির, রঘুনাথপুর সরকার বাড়ি দুর্গা মন্দির, রাধেশ্যাম দুর্গা বাড়ি দুর্গা মন্দির, জহরলাল দুর্গা বাড়ি দুর্গা মন্দির, ধীরেন্দ্র মাস্টার বাড়ি দুর্গা মন্দির, দুর্গাপুর গনেশ দাসের বাড়ি দুর্গা মন্দির, শুকলাল মাস্টার বাড়ি দুর্গা মন্দির, নান্দুর কান্দি হাওলাদার বাড়ি দুর্গা মন্দির, গজরা সার্বজনীন দুর্গা মন্দির, স্বর্গীয় জীবন ঘোষের বাড়ি দুর্গা মন্দির, হারাধন রায়ের বাড়ি, শ্যামাচরণের বাড়ি, চরপাথালিয়া প্রানকৃষ্ণ দাস বাড়ি দুর্গা মন্দির, হরগৌরি শ্মশান সংলগ্ন দুর্গা মন্দির, জলধর দাস বাড়ি দুর্গা মন্দির, অমৃত লাল নাগ অতুল বেপারী বাড়ি দুর্গা মন্দির, মধ্যম ডালিম খা সরকার বাড়ি দুর্গা মন্দির, স্বর্গীয় সুকুমার লাল বাড়ি দুর্গা মন্দির, অতুল চন্দ্র অধিকার বাড়ি দুর্গা মন্দির, তিতার কান্দি ঘোষ বাড়ি দুর্গা মন্দির, স্বর্গীয় কামিলিচরণ মন্ডল বাড়ি দুর্গা মন্দির, আনার পুর হিন্দু বাড়ি দুর্গা মন্দির, দুর্গাপুর আশ্রয় কেন্দ্র দুর্গা মন্দির, গজরা মনোরঞ্জন বনিকের বাড়ি দুর্গা মন্দির, ধনাগোদা রায়েরকান্দি শ্মশান দুর্গা মন্দির, জ্যোতি লাল মাস্টার বাড়ি দুর্গা মন্দির, মোহনপুর দুর্গা মন্দির, নান্দুরকান্দি কালিবাড়ী দুর্গা মন্দির, বড়ুরকান্দি দুর্গা মন্দির।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মতলব উত্তর উপজেলার শাখার সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাস বলেন, আগামী শুক্রবার (২০ অক্টোবর) ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে দূর্গা পূজা শুরু হবে। আগামী মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) দশমী ও বিসর্জনের মাধ্যমে শারদীয় পূজা সমাপ্ত হবে।

ছেংগারচর কালাচাঁদ আখড়া বাড়ির শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দিরের সভাপতি শ্যামল কুমার বাড়ৈ বলেন, বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মহিউদ্দিন বলেন, উপজেলার ৩৪টি পুজামন্ডপের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান বলেন, প্রতিটি পূজামন্ডপে কঠোর নিরাপত্তা জোরদার করা হবে। সব পূজামন্ডপে পুলিশ, আনসার নিয়োগের পাশাপাশি ব্যার বাহিনী টহল দিবেন। এছাড়াও ঝুঁকিপূর্র্ণ পূজামন্ডপে বিশেষ নজর রাখা হবে।