ঢাকা ০৭:২৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপুরে অপহরণের ঘটনায় মূলহোতা আলামিন আটক, ছাত্রী উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি : চাঁদপুর সদর উপজেলার সদর ইউনিয়নের শাহাতলী ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী অপহরণের ঘটনার ১৫ দিন পর অপহৃতা ছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণ মামলার মূল হোতা আলামিন খান(২২) কে আটক করেছে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চাঁদপুর মডেল থানার এসআই কুদ্দুস গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে লঞ্চ ঘাট এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করে।

Model Hospital

আটক অপহরণকারী আলামিন খান হামানকদ্দি এলাকার মজিবুর রহমান খানের ছেলে। গত ২৮ নভেম্বর মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে নাবালিকা কিশোরীকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মাদ্রাসা ছাত্রীর বাবা আব্দুর রহমান বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন,যার মামলা নাম্বার-১ তারিখ: ১/১২/২১।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে অবশেষে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে মাদ্রাসা রোড লঞ্চঘাট এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় অপহরণকারী আলামিন খান মাদ্রাসার ছাত্রীকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য লঞ্চঘাটে যায়। পুলিশ দক্ষতার পরিচয় দিয়ে অবশেষে অপহৃতা মাদ্রাসাছাত্রীকে উদ্ধারসহ অপহরণ মামলার মূল হোতা আল-আমিনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

মডেল থানার এসআই কুদ্দুস জানান, মাদ্রাসার ছাত্রী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর তার বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। অবশেষে মাদ্রাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করার জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান করার পর লঞ্চঘাট থেকে তাকে উদ্ধার করতে সম্ভব হয়েছে।

এ ঘটনায় অপহরণ মামলার মূল আসামি আলামিন খান কে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেয়।

ট্যাগস :

চাঁদপুরে অপহরণের ঘটনায় মূলহোতা আলামিন আটক, ছাত্রী উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৪:১০:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০২১

নিজস্ব প্রতিনিধি : চাঁদপুর সদর উপজেলার সদর ইউনিয়নের শাহাতলী ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী অপহরণের ঘটনার ১৫ দিন পর অপহৃতা ছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণ মামলার মূল হোতা আলামিন খান(২২) কে আটক করেছে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চাঁদপুর মডেল থানার এসআই কুদ্দুস গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে লঞ্চ ঘাট এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করে।

Model Hospital

আটক অপহরণকারী আলামিন খান হামানকদ্দি এলাকার মজিবুর রহমান খানের ছেলে। গত ২৮ নভেম্বর মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে নাবালিকা কিশোরীকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মাদ্রাসা ছাত্রীর বাবা আব্দুর রহমান বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন,যার মামলা নাম্বার-১ তারিখ: ১/১২/২১।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে অবশেষে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে মাদ্রাসা রোড লঞ্চঘাট এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় অপহরণকারী আলামিন খান মাদ্রাসার ছাত্রীকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য লঞ্চঘাটে যায়। পুলিশ দক্ষতার পরিচয় দিয়ে অবশেষে অপহৃতা মাদ্রাসাছাত্রীকে উদ্ধারসহ অপহরণ মামলার মূল হোতা আল-আমিনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

মডেল থানার এসআই কুদ্দুস জানান, মাদ্রাসার ছাত্রী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর তার বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। অবশেষে মাদ্রাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করার জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান করার পর লঞ্চঘাট থেকে তাকে উদ্ধার করতে সম্ভব হয়েছে।

এ ঘটনায় অপহরণ মামলার মূল আসামি আলামিন খান কে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেয়।