ঢাকা ০৭:৩৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোর হলেই উপ-নির্বাচন : নৌকা-অটোরিকশার হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা

মনিরুল ইসলাম মনির : মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচন আজ বৃহস্পতিবার। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইলেকটট্রনিক্স পদ্ধতিতে অর্থাৎ ইভিএমের মাধ্যমে ৯টি কেন্দ্রেই ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

Model Hospital

উপজেলা নির্বাচন অফিস প্রত্যেকটি ভোটকেন্দ্রে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। প্রতিটি ভোটকেন্দ্র প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং, পোলিং অফিসার ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনী স্ব-স্ব ভোটকেন্দ্রে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।

নির্বাচন উপলক্ষে এলাকার বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা সেজেছে নির্বাচনী আমেজে। ভোটকেন্দ্রে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ভোট দিবেন ভোটাররা। এলাকার রাস্তাঘাট সহ নানা স্থানে প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো মোহনপুর ইউনিয়ন।

সাধারণ ভোটাররা উৎসব মুখর পরিবেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের আশা করছেন।
এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৯ জন প্রার্থী প্রতিন্দন্দ্বীতা করছে। এ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ৯টি ভোট কেন্দ্রে ১৫ হাজার ৬৬২ ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮ হাজার ৮২ এবং নারী ভোটার সংখ্যা ৭ হাজার ৫৮০ জন। মোট ৯টি ভোট কেন্দ্র। মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ৪৮টি ও অস্থায়ী ভোট কক্ষ ৩টি। তবে প্রার্থীরা কাকে ভোট দেবেন এ নিয়ে শেষ মুহূর্তে চলছে নিরব হিসাব নিকাশ।

বুধবার সকালে মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আব্দুল হাই প্রধানকে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছে ৭ প্রার্থী।

এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিন্দনন্দ্বীতাকারীরা হচ্ছেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই প্রধান, স্বতন্ত্র হিসেবে অটোরিকশা প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন কাজী মিজানুর রহমান, আনারস প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন আবুল কাশেম মাস্টার, মোটর সাইকেল প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন হাবিবুর রহমান (হাফিজ তপাদার), ঘোড়া প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন অ্যাড. সেলিম মিয়া, চশমা প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন বদিউর রহমান, ঢোল প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন আবু হানিফ অভি, টেলিফোন প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন ফয়সাল আহমেদ নাদিম, টেবিল ফ্যান প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন শরীফ মাহমুদ সায়েম। নির্বাচনে নৌকা ও অটোরিকশা প্রতীকের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে জানিয়েছেন ভোটাররা।

অপরদিকে ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদে শুণ্যপদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দুই জন।

এদিকে চাঁদপুর জেলা পুলিশ এই নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখার দায়িত্বে রয়েছেন। প্রত্যেক কেন্দ্রে পুলিশ সদস্য রয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠু ও আনন্দঘন করার জন্য যা ব্যবস্থা করা প্রয়োজন চাঁদপুর জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি, কোস্টগার্ড, র‌্যাব, আনসার সদস্যরা টহলরত অবস্থায় নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান করছে।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান বলেন, ১৬ মার্চ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন ও চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় আমরা সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। এই নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার লক্ষে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞবদ্ধ। এই নির্বাচনে সম্মানিত ভোটাররা নির্বিঘ্নে যেন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সে ক্ষেত্রে আমরা প্রস্তুত রয়েছি।

তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষে ৬জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজ শুরু করেছেন। এছাড়া পুলিশ বাহিনীর মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং ফোর্স, পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ বাহিনী, ২ প্লাটুন বিজিবি সদস্য কাজ শুরু করেছেন। র‌্যাবের এলিট টিম আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছেন।

এছাড়া নির্বাচনের কার্যক্রম পরিচালনায় যে সকল সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিক, প্রার্থীসহ ভোটারদের সহযোগিতায় সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে আমরা প্রতিজ্ঞ।

কচুয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার কাজী আবু বকর সিদ্দিক জানান, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি।

ট্যাগস :

ভোর হলেই উপ-নির্বাচন : নৌকা-অটোরিকশার হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা

আপডেট সময় : ০৪:০২:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩

মনিরুল ইসলাম মনির : মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচন আজ বৃহস্পতিবার। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইলেকটট্রনিক্স পদ্ধতিতে অর্থাৎ ইভিএমের মাধ্যমে ৯টি কেন্দ্রেই ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

Model Hospital

উপজেলা নির্বাচন অফিস প্রত্যেকটি ভোটকেন্দ্রে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। প্রতিটি ভোটকেন্দ্র প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং, পোলিং অফিসার ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনী স্ব-স্ব ভোটকেন্দ্রে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।

নির্বাচন উপলক্ষে এলাকার বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা সেজেছে নির্বাচনী আমেজে। ভোটকেন্দ্রে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ভোট দিবেন ভোটাররা। এলাকার রাস্তাঘাট সহ নানা স্থানে প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো মোহনপুর ইউনিয়ন।

সাধারণ ভোটাররা উৎসব মুখর পরিবেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের আশা করছেন।
এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৯ জন প্রার্থী প্রতিন্দন্দ্বীতা করছে। এ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ৯টি ভোট কেন্দ্রে ১৫ হাজার ৬৬২ ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮ হাজার ৮২ এবং নারী ভোটার সংখ্যা ৭ হাজার ৫৮০ জন। মোট ৯টি ভোট কেন্দ্র। মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ৪৮টি ও অস্থায়ী ভোট কক্ষ ৩টি। তবে প্রার্থীরা কাকে ভোট দেবেন এ নিয়ে শেষ মুহূর্তে চলছে নিরব হিসাব নিকাশ।

বুধবার সকালে মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আব্দুল হাই প্রধানকে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছে ৭ প্রার্থী।

এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিন্দনন্দ্বীতাকারীরা হচ্ছেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই প্রধান, স্বতন্ত্র হিসেবে অটোরিকশা প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন কাজী মিজানুর রহমান, আনারস প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন আবুল কাশেম মাস্টার, মোটর সাইকেল প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন হাবিবুর রহমান (হাফিজ তপাদার), ঘোড়া প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন অ্যাড. সেলিম মিয়া, চশমা প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন বদিউর রহমান, ঢোল প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন আবু হানিফ অভি, টেলিফোন প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন ফয়সাল আহমেদ নাদিম, টেবিল ফ্যান প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন শরীফ মাহমুদ সায়েম। নির্বাচনে নৌকা ও অটোরিকশা প্রতীকের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে জানিয়েছেন ভোটাররা।

অপরদিকে ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদে শুণ্যপদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দুই জন।

এদিকে চাঁদপুর জেলা পুলিশ এই নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখার দায়িত্বে রয়েছেন। প্রত্যেক কেন্দ্রে পুলিশ সদস্য রয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠু ও আনন্দঘন করার জন্য যা ব্যবস্থা করা প্রয়োজন চাঁদপুর জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি, কোস্টগার্ড, র‌্যাব, আনসার সদস্যরা টহলরত অবস্থায় নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান করছে।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান বলেন, ১৬ মার্চ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন ও চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় আমরা সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। এই নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার লক্ষে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞবদ্ধ। এই নির্বাচনে সম্মানিত ভোটাররা নির্বিঘ্নে যেন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সে ক্ষেত্রে আমরা প্রস্তুত রয়েছি।

তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষে ৬জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজ শুরু করেছেন। এছাড়া পুলিশ বাহিনীর মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং ফোর্স, পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ বাহিনী, ২ প্লাটুন বিজিবি সদস্য কাজ শুরু করেছেন। র‌্যাবের এলিট টিম আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছেন।

এছাড়া নির্বাচনের কার্যক্রম পরিচালনায় যে সকল সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিক, প্রার্থীসহ ভোটারদের সহযোগিতায় সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে আমরা প্রতিজ্ঞ।

কচুয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার কাজী আবু বকর সিদ্দিক জানান, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি।