ঢাকা ০৫:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মতলব দক্ষিণ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দালাল বিরোধী অভিযানে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

হাসপাতালে দালালদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমিদা হক।

মোজাম্মেল প্রধান হাসিব : মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দালাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমিদা হক।

Model Hospital

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ১২ টায় অভিযানে পাঁচ দালালকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সরেজমিনে জানা যায়, মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভিতরে উপজেলা সদরের বিশেষ করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে গড়ে ওঠা বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়োগকৃত মহিলা দালালদের উৎপাতে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা বিভিন্ন অঞ্চলের রোগীরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে। দালালদের এমন উৎপাত বন্ধে বৃহস্পতিবার আকস্মিকভাবে দালাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

অভিযানে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে হরযত শাহ জালাল ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দুজন, পপুলার মেডিকেল সেন্টারের একজন, নোভা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের একজনসহ অপরজনকে আটক করা হয়। আটককৃত মহিলাদের বিরুদ্ধে হাসপাতালে দালালি করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে তিন মাসের জেল প্রদান করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাৎক্ষণিকভাবে জরিমানার অর্থ প্রদান করতে ব্যর্থ হলে আটককৃতদের থানা হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিকরা জরিমানার অর্থ পরিশোধ করে তাদের ছাড়িয়ে আনেন।

অভিযান পরিচালনার সময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম কাওসার হিমেল, আবাসিক মেডিকেল অফিসার রাজিব কিশোর বণিক, মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোশারফ হোসেন, স্যানিটারী ইন্সপেক্টর খোরশেদ আলম সহ থানা পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে দালাল বিরোধী অভিযান পরিচালনার সময় অনেক দালালরা আত্মগোপনে চলে যায়। সরকারি হাসপাতাল সড়কে একাধিক ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে গড়ে ওঠা প্যাথলজির মালিকরা এ সকল দালাল নিয়োগ করে থাকেন। তাদের কারণে রোগীরা সঠিক সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সেই সাথে হাসপাতালের কতিপয় ডাক্তাররাও নিজেদের পছন্দের ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী পাঠান বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য। মাঝে মাঝে রোগী টানাটানি নিয়ে দালালদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও হয়ে থাকে বলে জানান স্থানীয়রা।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

শাহরাস্তিতে নিজের পায়ুপথে ৬ ইঞ্চি ডাব প্রবেশ করিয়ে বিপাকে যুবক

মতলব দক্ষিণ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দালাল বিরোধী অভিযানে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

আপডেট সময় : ০৮:৪৬:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২১

মোজাম্মেল প্রধান হাসিব : মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দালাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমিদা হক।

Model Hospital

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ১২ টায় অভিযানে পাঁচ দালালকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সরেজমিনে জানা যায়, মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভিতরে উপজেলা সদরের বিশেষ করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে গড়ে ওঠা বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়োগকৃত মহিলা দালালদের উৎপাতে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা বিভিন্ন অঞ্চলের রোগীরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে। দালালদের এমন উৎপাত বন্ধে বৃহস্পতিবার আকস্মিকভাবে দালাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

অভিযানে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে হরযত শাহ জালাল ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দুজন, পপুলার মেডিকেল সেন্টারের একজন, নোভা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের একজনসহ অপরজনকে আটক করা হয়। আটককৃত মহিলাদের বিরুদ্ধে হাসপাতালে দালালি করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে তিন মাসের জেল প্রদান করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাৎক্ষণিকভাবে জরিমানার অর্থ প্রদান করতে ব্যর্থ হলে আটককৃতদের থানা হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিকরা জরিমানার অর্থ পরিশোধ করে তাদের ছাড়িয়ে আনেন।

অভিযান পরিচালনার সময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম কাওসার হিমেল, আবাসিক মেডিকেল অফিসার রাজিব কিশোর বণিক, মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোশারফ হোসেন, স্যানিটারী ইন্সপেক্টর খোরশেদ আলম সহ থানা পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে দালাল বিরোধী অভিযান পরিচালনার সময় অনেক দালালরা আত্মগোপনে চলে যায়। সরকারি হাসপাতাল সড়কে একাধিক ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে গড়ে ওঠা প্যাথলজির মালিকরা এ সকল দালাল নিয়োগ করে থাকেন। তাদের কারণে রোগীরা সঠিক সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সেই সাথে হাসপাতালের কতিপয় ডাক্তাররাও নিজেদের পছন্দের ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী পাঠান বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য। মাঝে মাঝে রোগী টানাটানি নিয়ে দালালদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও হয়ে থাকে বলে জানান স্থানীয়রা।