ঢাকা ০৭:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপুরে থানায় অভিযোগ করায় ছেলের হাত ভেঙে দিল সন্ত্রাসীরা

স্টাফ রিপোর্টার : সন্ত্রাসী হামলার বিচার পেতে থানায় অভিযোগ করায় অতর্কিতভাবে হামলা করে ছেলের হাত ভেঙ্গে দিল সন্ত্রাসীরা।
২২ ফেব্রুয়ারি বুধবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর শহরের নতুন বাজার দক্ষিণ গুনরাজদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
সন্ত্রাসী হামলায় আহত আল আমিনের (২৮) হাত ভেঙে গেলে এলাকাবাসী দ্রুততাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়, হসপিটালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত কে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় রেফার করে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ গুনরাজদী এলাকার খলিফা বাড়ির মৃত ইউনুস মিয়ার ছেলে খাজা আহমেদ সহ বাড়ির অন্যান্য অংশীদারদের সাথে একই এলাকার মৃত হাসেম আলীর ছেলে শাজাহান, শাহ আলম ও শাহাদাতের সাথে বসতবাড়ির উপর দিয়ে চলাচলের রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলছিল।
ঘটনার দিন সকালে বিবাদী গংরা খাজা আহমদের বসতবাড়ির উপর দিয়ে জোরপূর্বক রাস্তা নিতে চায়। এতে বাধা দিলে ৬০ বছরের বৃদ্ধ খাজা আহমেদের (৬১) উপর হামলা চালায় শাজাহান ও শাহ আলম গংরা। হামলায় বৃদ্ধ খাজা আহমদ মারাত্মক আহত হলে তাকে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে খাজা আহমদ বাদী হয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
খাজা আহমেদ জানান, বিবাদী গংরা থানায় অভিযোগের বিষয়টি জানতে পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে ঘটনার দিন সন্ধ্যায় আমার ছেলে অটো রিক্সা চালক আল-আমিন কে অটোর গ্যারেজ থেকে ডেকে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র সশস্ত্র দিয়ে হামলা করে ব্যাপকভাবে মারধর করে। এতে আল আমিনের বাম হাত ভেঙে যায়। আহত আল আমিনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক।
দক্ষিণ গুনগাজী এলাকার গণ্যমান্য এমআই মমিন সহ কয়েকজন জানান, শাজাহান, শাহ আলম, শাহাদাত ও ইমন গংরা ভূমি দস্য ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। এরা মাদকসহ বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। এই বিষয়টি নিয়ে এলাকায় কয়েকবার বসে সমাধান করা হয়েছে। এরপরও এরা জোরপূর্বক আরেকজনের বসত বাড়ির উপর দিয়ে রাস্তা নিতে চায়।
এ বিষয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানার এসআই ইসমাইল জানান, বুধবার আহমদ বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরবর্তীতে আমরা জানতে পেরেছি সন্ধ্যায় তার ছেলের উপর হামলা হয়েছে। ওসি স্যারের নির্দেশে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি, কাউকে আটক করতে পারিনি। মামলার প্রস্তুতি চলছে, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ট্যাগস :

চাঁদপুরে থানায় অভিযোগ করায় ছেলের হাত ভেঙে দিল সন্ত্রাসীরা

আপডেট সময় : ০৫:২৮:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
স্টাফ রিপোর্টার : সন্ত্রাসী হামলার বিচার পেতে থানায় অভিযোগ করায় অতর্কিতভাবে হামলা করে ছেলের হাত ভেঙ্গে দিল সন্ত্রাসীরা।
২২ ফেব্রুয়ারি বুধবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর শহরের নতুন বাজার দক্ষিণ গুনরাজদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
সন্ত্রাসী হামলায় আহত আল আমিনের (২৮) হাত ভেঙে গেলে এলাকাবাসী দ্রুততাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়, হসপিটালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত কে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় রেফার করে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ গুনরাজদী এলাকার খলিফা বাড়ির মৃত ইউনুস মিয়ার ছেলে খাজা আহমেদ সহ বাড়ির অন্যান্য অংশীদারদের সাথে একই এলাকার মৃত হাসেম আলীর ছেলে শাজাহান, শাহ আলম ও শাহাদাতের সাথে বসতবাড়ির উপর দিয়ে চলাচলের রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলছিল।
ঘটনার দিন সকালে বিবাদী গংরা খাজা আহমদের বসতবাড়ির উপর দিয়ে জোরপূর্বক রাস্তা নিতে চায়। এতে বাধা দিলে ৬০ বছরের বৃদ্ধ খাজা আহমেদের (৬১) উপর হামলা চালায় শাজাহান ও শাহ আলম গংরা। হামলায় বৃদ্ধ খাজা আহমদ মারাত্মক আহত হলে তাকে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে খাজা আহমদ বাদী হয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
খাজা আহমেদ জানান, বিবাদী গংরা থানায় অভিযোগের বিষয়টি জানতে পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে ঘটনার দিন সন্ধ্যায় আমার ছেলে অটো রিক্সা চালক আল-আমিন কে অটোর গ্যারেজ থেকে ডেকে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র সশস্ত্র দিয়ে হামলা করে ব্যাপকভাবে মারধর করে। এতে আল আমিনের বাম হাত ভেঙে যায়। আহত আল আমিনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক।
দক্ষিণ গুনগাজী এলাকার গণ্যমান্য এমআই মমিন সহ কয়েকজন জানান, শাজাহান, শাহ আলম, শাহাদাত ও ইমন গংরা ভূমি দস্য ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। এরা মাদকসহ বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। এই বিষয়টি নিয়ে এলাকায় কয়েকবার বসে সমাধান করা হয়েছে। এরপরও এরা জোরপূর্বক আরেকজনের বসত বাড়ির উপর দিয়ে রাস্তা নিতে চায়।
এ বিষয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানার এসআই ইসমাইল জানান, বুধবার আহমদ বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরবর্তীতে আমরা জানতে পেরেছি সন্ধ্যায় তার ছেলের উপর হামলা হয়েছে। ওসি স্যারের নির্দেশে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি, কাউকে আটক করতে পারিনি। মামলার প্রস্তুতি চলছে, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।