ঢাকা ০৮:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপির সময়ে বাংলাদেশ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশে পরিণত হয়েছিল: অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল

মনিরুল ইসলাম মনির: চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল বলেছেন, বিএনপি ও জামায়াত জোট ২০০১ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত যখন ক্ষমতায় ছিল। তখন তারা সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে বোমা ফাটিয়ে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছিল। বিএনপির আমলে বাংলাদেশে শায়েখ আবদুর রহমানের আবির্ভাব হয়েছিল, বাংলা ভাইয়ের আর্বিভাব হয়েছিল। তারা অনেক মানুষকে হত্যা করেছে। পুলিশ তখন তাদের সালাম দিত, স্যালুট দিত। দেশে আইনের শাসন ছিল না।

Model Hospital

১১ ফেব্রুয়ারী শনিবার সকালে দেশব্যাপী বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্য ও অগ্নি সন্ত্রাসের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মতলব উত্তর উপজেলায় ১১নং পশ্চিম ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শান্তি মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নাউরি বাজারে ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শান্তি মিছিলটি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক পদক্ষিণ শেষে সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল বলেন, বিএনপির সময় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছিলেন বিরোধীদলীয় নেত্রী। শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। ওই হামলায় মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আইভি রহমানসহ আওয়ামী লীগের ২২ নেতা-কর্মী নিহত হন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ শত শত নেতা-কর্মী আহত হয়েছিলেন।

সংসদ সদস্য রুহুল বলেন, বিএনপির সময়ে বাংলাদেশ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশে পরিণত হয়েছিল। ওই সময়ে সারের জন্য আন্দোলন করায় ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আর আজকে কৃষককে সার খুঁজতে হয় না, উল্টো সার কৃষককে খোঁজে। আওয়ামী লীগ সরকার কৃষককে সার, বীজ ও প্রণোদনা দিচ্ছে। আজকে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছেছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস।

ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য সরকার মো. আলাউদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শহিদ উল্লাহ প্রধান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন মাষ্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান প্রধান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান, ফতেপুর পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মিরাজ খালিদ, ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নূরে আলম স্বপন প্রমুখ।

ট্যাগস :

বিএনপির সময়ে বাংলাদেশ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশে পরিণত হয়েছিল: অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল

আপডেট সময় : ০৩:৫৩:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

মনিরুল ইসলাম মনির: চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল বলেছেন, বিএনপি ও জামায়াত জোট ২০০১ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত যখন ক্ষমতায় ছিল। তখন তারা সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে বোমা ফাটিয়ে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছিল। বিএনপির আমলে বাংলাদেশে শায়েখ আবদুর রহমানের আবির্ভাব হয়েছিল, বাংলা ভাইয়ের আর্বিভাব হয়েছিল। তারা অনেক মানুষকে হত্যা করেছে। পুলিশ তখন তাদের সালাম দিত, স্যালুট দিত। দেশে আইনের শাসন ছিল না।

Model Hospital

১১ ফেব্রুয়ারী শনিবার সকালে দেশব্যাপী বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্য ও অগ্নি সন্ত্রাসের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মতলব উত্তর উপজেলায় ১১নং পশ্চিম ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শান্তি মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নাউরি বাজারে ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শান্তি মিছিলটি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক পদক্ষিণ শেষে সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল বলেন, বিএনপির সময় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছিলেন বিরোধীদলীয় নেত্রী। শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। ওই হামলায় মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আইভি রহমানসহ আওয়ামী লীগের ২২ নেতা-কর্মী নিহত হন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ শত শত নেতা-কর্মী আহত হয়েছিলেন।

সংসদ সদস্য রুহুল বলেন, বিএনপির সময়ে বাংলাদেশ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশে পরিণত হয়েছিল। ওই সময়ে সারের জন্য আন্দোলন করায় ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আর আজকে কৃষককে সার খুঁজতে হয় না, উল্টো সার কৃষককে খোঁজে। আওয়ামী লীগ সরকার কৃষককে সার, বীজ ও প্রণোদনা দিচ্ছে। আজকে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছেছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস।

ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য সরকার মো. আলাউদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শহিদ উল্লাহ প্রধান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন মাষ্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান প্রধান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান, ফতেপুর পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মিরাজ খালিদ, ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নূরে আলম স্বপন প্রমুখ।