ঢাকা ০৩:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুদ্ধ নিজের জন্য নয়, নতুন প্রজন্মের জন্য করেছি; মেজর রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম

মো. মাসুদ রানা : শাহরাস্তিতে কেশরাঙ্গা সপ্রা’বির শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

শুক্রবার সকালে (১৩-জানুয়ারি) উপজেলার সূচীপাড়া দক্ষিন ইউপির কেশরাঙ্গা সপ্রা’বির প্রাঙ্গণে এটি অনুষ্ঠিত হয়। কেশরাঙ্গা সপ্রা’বির পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মো. মফিজুর রহমান পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের কিংবদন্তি ১ নং সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার নৌ- পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি। তিনি আগন্তক অতিথি ওই সপ্রাবিটির শতবর্ষের বিভিন্ন সময়ের উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ করেছি বলে স্বাধীন স্বদেশে আজ আমরা তোমরা এখানে বসতে পেরেছি। তাই স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস হৃদয়ে লালন করে তোমাদের বড় হতে হবে।

এ যুদ্ধ করেছি আমার মা- বাবা, আগামী প্রজন্ম যেন একটি সুখী সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশে জীবনযাপন করতে পারে।

তিনি স্বাধীনতা যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধুসহ যাদের আত্মত্যাগে লাল সবুজের পতাকা অর্জিত হয়েছে ওই বীর সেনানিদের শ্রদ্ধার সহিত স্মরণ করেন। একটি স্বাধীন পতাকা ও ভূখণ্ড অর্জনে স্বাধীনতার প্রকৃত স্বাদ পাওয়া যায় না। যদি নিপীড়িত মানুষ তার বিচার, দরিদ্র মানুষ অভাব গোছাতে পারে, তাহলে এই স্বাধীনতার অর্জন সার্থক হবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।পরিশেষে তিনি আয়োজকসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্বা মফিজুর রহমান বাবলু, কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ জামাল নাসের, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আবু জাফর খান, পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ,উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী শেফালী, শাহরাস্তি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার, উপজেলা পরিযদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, অধ্যাপক নজরুল ইসলাম (কৃষিবিদ অস্ট্রেলিয়া),সাংসদের একান্ত সহকারি মশিউর রহমান শাহিন, পৌর আ’লীগের সভাপতি আহসান মঞ্জরুল ইসলাম জুয়েল, ইউপি চেয়ারম্যান মাহতাব উদ্দিন হেলাল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা গোলাম মোস্তফা,উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার লুৎফুর রহমান।অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, কেশরাঙ্গা সপাবির প্রধান শিক্ষক ফাতেমা আক্তার,ইউপি আ’লীগের সভাপতি আবুল বাসার,সাধারণ সম্পাদক মাসুদ হোসেন পাটঃ, সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন লোটরা বাজার সপ্রাবির শিক্ষক হুমায়ুন কবির খন্দকার সেন্টু।

উল্লেখ্য, সভার পর মধ্যাহ্ন ভোজন শেষে জনপ্রিয় শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ওই গ্রামের মরহুম টুকুমিয়া পাটোয়ারীর স্ত্রী রত্মন বানু তার মোহরানার হক বাবদ পাওয়া ৩৬ শতাংশ ভূমি দিয়ে এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টি শুরু করেন।

আজ শত বছর পূর্বের মহীয়সী নারীর (বিদ্যালয়ের) জন্য দানকৃত সম্পত্তির উপর এ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হলো।

ট্যাগস :

বিশাল মিছিল নিয়ে রাজপথে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

যুদ্ধ নিজের জন্য নয়, নতুন প্রজন্মের জন্য করেছি; মেজর রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম

আপডেট সময় : ০৩:২৭:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৩ জানুয়ারী ২০২৩

মো. মাসুদ রানা : শাহরাস্তিতে কেশরাঙ্গা সপ্রা’বির শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

শুক্রবার সকালে (১৩-জানুয়ারি) উপজেলার সূচীপাড়া দক্ষিন ইউপির কেশরাঙ্গা সপ্রা’বির প্রাঙ্গণে এটি অনুষ্ঠিত হয়। কেশরাঙ্গা সপ্রা’বির পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মো. মফিজুর রহমান পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের কিংবদন্তি ১ নং সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার নৌ- পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি। তিনি আগন্তক অতিথি ওই সপ্রাবিটির শতবর্ষের বিভিন্ন সময়ের উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ করেছি বলে স্বাধীন স্বদেশে আজ আমরা তোমরা এখানে বসতে পেরেছি। তাই স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস হৃদয়ে লালন করে তোমাদের বড় হতে হবে।

এ যুদ্ধ করেছি আমার মা- বাবা, আগামী প্রজন্ম যেন একটি সুখী সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশে জীবনযাপন করতে পারে।

তিনি স্বাধীনতা যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধুসহ যাদের আত্মত্যাগে লাল সবুজের পতাকা অর্জিত হয়েছে ওই বীর সেনানিদের শ্রদ্ধার সহিত স্মরণ করেন। একটি স্বাধীন পতাকা ও ভূখণ্ড অর্জনে স্বাধীনতার প্রকৃত স্বাদ পাওয়া যায় না। যদি নিপীড়িত মানুষ তার বিচার, দরিদ্র মানুষ অভাব গোছাতে পারে, তাহলে এই স্বাধীনতার অর্জন সার্থক হবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।পরিশেষে তিনি আয়োজকসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্বা মফিজুর রহমান বাবলু, কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ জামাল নাসের, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আবু জাফর খান, পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ,উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী শেফালী, শাহরাস্তি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার, উপজেলা পরিযদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, অধ্যাপক নজরুল ইসলাম (কৃষিবিদ অস্ট্রেলিয়া),সাংসদের একান্ত সহকারি মশিউর রহমান শাহিন, পৌর আ’লীগের সভাপতি আহসান মঞ্জরুল ইসলাম জুয়েল, ইউপি চেয়ারম্যান মাহতাব উদ্দিন হেলাল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা গোলাম মোস্তফা,উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার লুৎফুর রহমান।অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, কেশরাঙ্গা সপাবির প্রধান শিক্ষক ফাতেমা আক্তার,ইউপি আ’লীগের সভাপতি আবুল বাসার,সাধারণ সম্পাদক মাসুদ হোসেন পাটঃ, সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন লোটরা বাজার সপ্রাবির শিক্ষক হুমায়ুন কবির খন্দকার সেন্টু।

উল্লেখ্য, সভার পর মধ্যাহ্ন ভোজন শেষে জনপ্রিয় শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ওই গ্রামের মরহুম টুকুমিয়া পাটোয়ারীর স্ত্রী রত্মন বানু তার মোহরানার হক বাবদ পাওয়া ৩৬ শতাংশ ভূমি দিয়ে এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টি শুরু করেন।

আজ শত বছর পূর্বের মহীয়সী নারীর (বিদ্যালয়ের) জন্য দানকৃত সম্পত্তির উপর এ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হলো।