ঢাকা ০৮:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে যানজট মুক্ত ও অবৈধ দখল মুক্ত করতে প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযান

এস এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ পৌর শহরকে যানজট মুক্ত ও অবৈধ দখল মুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান করেছে প্রশাসন।

Model Hospital

৯ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাসলিমুন নেসা, পৌর মেয়র যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী, সহকারি কমিশনার (ভুমি) আজিজুন নাহার, অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল মান্নানসহ সরকারি কর্মকর্তা, পুলিশ এবং পৌরসভার কর্মকর্তারা এই উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেন।

অভিযানটি পৌরসভার সামনে থেকে ওনুআ চত্তর এবং বাসস্ট্যন্ড এলাকায় সড়কের উপর থাকা দোকান পাট সরিয়ে নিতে নিদের্শনা প্রদান করেন প্রশাসন। এছাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সড়ক ও জনপথের ভূমির উপর স্থাপিত অস্থায়ী দোকানপাট ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সরিয়ে নিতে সময় বেদে দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট।

এব্যাপারে পৌর মেয়র যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী বলেন, পৌর শহরকে যানজট মুক্ত করণ করার সাথে সাথে যেখানে সেখানে গড়ে উঠা অস্থায়ী ও অনুমোদনহীন দোকান সরিয়ে নিতে ইতিপুর্বে মাইকিং করা হয়। সেই লক্ষ্যে সোমবার উপজেলা প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষ পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে এই অভিযান করে।

উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট তাসলিমুন নেসা জানান, শহরে যানজট অসহনীয় হয়ে উঠেছে। এক মিনিটের রাস্তা পার হতে ৪/৫ মিনিট সময় লাগে। অবৈধ স্থাপনা ও দোকানদারদের যেখানে সেখানে মালামাল ফেলে রাখার কারণে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়। তাই পূর্ব ঘোষনা অনুযায়ী আজ এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। প্রথমদিন উচ্ছেদের পাশাপাশি সর্তক করা হয়েছে। পরবর্তীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল জরিমানা করা হবে।

উল্লেখ্যঃ চাঁদপুর-রায়পুর সড়কের ফরিদগঞ্জ অংশে সড়কের দু‘পশে শত শত অবৈধ দখলদার স্থাপনা তৈরি রেখেছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ উদ্যোগ নিয়ে অবৈধ স্থাপনাগুলো স্থায়ী উচ্ছেদ দেওয়া জরুরী মনে করছেন সচেতন মহল। শুধুতাই নয় প্রতি মাসে এ সকল অবৈধ স্থাপনাগুলো বাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ ও পাউবি অনেক বছর পর পর উচ্ছেদ দিলেও এর স্থায়ীত্ব রক্ষা হচ্ছে না। আজ উচ্ছেদ দিলে কালই দখলে নিয়ে নিচ্ছে অবৈধ দখল দাররা। উদ্ধারকরা জায়গা দির্ঘস্থায়ী দখল মুক্ত রাখতে সরকারকে আরোও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছে।

ট্যাগস :

ফরিদগঞ্জে যানজট মুক্ত ও অবৈধ দখল মুক্ত করতে প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযান

আপডেট সময় : ০৩:২৭:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৩

এস এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ পৌর শহরকে যানজট মুক্ত ও অবৈধ দখল মুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান করেছে প্রশাসন।

Model Hospital

৯ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাসলিমুন নেসা, পৌর মেয়র যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী, সহকারি কমিশনার (ভুমি) আজিজুন নাহার, অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল মান্নানসহ সরকারি কর্মকর্তা, পুলিশ এবং পৌরসভার কর্মকর্তারা এই উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেন।

অভিযানটি পৌরসভার সামনে থেকে ওনুআ চত্তর এবং বাসস্ট্যন্ড এলাকায় সড়কের উপর থাকা দোকান পাট সরিয়ে নিতে নিদের্শনা প্রদান করেন প্রশাসন। এছাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সড়ক ও জনপথের ভূমির উপর স্থাপিত অস্থায়ী দোকানপাট ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সরিয়ে নিতে সময় বেদে দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট।

এব্যাপারে পৌর মেয়র যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী বলেন, পৌর শহরকে যানজট মুক্ত করণ করার সাথে সাথে যেখানে সেখানে গড়ে উঠা অস্থায়ী ও অনুমোদনহীন দোকান সরিয়ে নিতে ইতিপুর্বে মাইকিং করা হয়। সেই লক্ষ্যে সোমবার উপজেলা প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষ পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে এই অভিযান করে।

উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট তাসলিমুন নেসা জানান, শহরে যানজট অসহনীয় হয়ে উঠেছে। এক মিনিটের রাস্তা পার হতে ৪/৫ মিনিট সময় লাগে। অবৈধ স্থাপনা ও দোকানদারদের যেখানে সেখানে মালামাল ফেলে রাখার কারণে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়। তাই পূর্ব ঘোষনা অনুযায়ী আজ এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। প্রথমদিন উচ্ছেদের পাশাপাশি সর্তক করা হয়েছে। পরবর্তীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল জরিমানা করা হবে।

উল্লেখ্যঃ চাঁদপুর-রায়পুর সড়কের ফরিদগঞ্জ অংশে সড়কের দু‘পশে শত শত অবৈধ দখলদার স্থাপনা তৈরি রেখেছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ উদ্যোগ নিয়ে অবৈধ স্থাপনাগুলো স্থায়ী উচ্ছেদ দেওয়া জরুরী মনে করছেন সচেতন মহল। শুধুতাই নয় প্রতি মাসে এ সকল অবৈধ স্থাপনাগুলো বাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ ও পাউবি অনেক বছর পর পর উচ্ছেদ দিলেও এর স্থায়ীত্ব রক্ষা হচ্ছে না। আজ উচ্ছেদ দিলে কালই দখলে নিয়ে নিচ্ছে অবৈধ দখল দাররা। উদ্ধারকরা জায়গা দির্ঘস্থায়ী দখল মুক্ত রাখতে সরকারকে আরোও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছে।