ঢাকা ০৩:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাইমচরে পরাজীত চেয়ারম্যান প্রার্থীকে শান্তনা দিতে গিয়ে হামলার শিকার ইউপি সদস্য

হাইমচর প্রতিনিধি : নৌকা প্রতীকের পরাজীত চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান গাজীকে শান্তনা দিতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন  ইউপি সদস্য। আহতদের মধ্যে এক ইউপি সদস্য ও তার ছেলে গুরুতর আহত অবস্থায় হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়েছেন।
জানাজায়, গত ২৯ ডিসেম্বর শান্তিপূর্ন পরিবেশে ইভিএমের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় হাইমচর উপজেলার ১ নং গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। ঐ নির্বাচনে ১০৭ ভোটের ব্যবধানে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাছে পরাজীত হন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান গাজী। নির্বাচনে পুরাতন ৮ ইউপি সদস্য পুনরায় নির্বাচিত হন। নির্বাচনের পরের দিন ৩০ ডিসেম্বর বেসরকারি ভাবে ফলাফল ঘোষনার পর নির্বাচিত ৮ ইউপি সদস্য পরাজীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান গাজীকে শান্তনা দিতে তার বাড়িতে যান। বাড়িতে যাওয়ার পর  তিনি পরাজীত হয়ে মেম্বাররা বিজয়ী হলেন কেন।
এ বিষয় নিয়ে ইউপি সদস্যদের সাথে তার কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাবিবুর রহমান গাজীর নেতৃত্বে তার ছেলেরা ও পরিবারের লোকজনসহ তাদের উপর হামলা করেন। এতে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত দেলোয়ার হোসেন গাজী গুরুতর আহত হয়।
আহত ইউপি সদস্য দেলোয়ার হোসেন জানান, আমাদের বিজয়ের ফলাফল নিতে এসে সকল সদস্য একত্রিত হই। আমি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সভাপতি হাবিবুর রহমান গাজীকে শান্তনা দিতে সকলকে সাথে নিয়ে তার বাড়িতে যাই। আমরা যাওয়ার পর তিনি তার ছেলে ও লোকজনকে হুকুম দেন আমাদেরকে মারার জন্য।
এমন সময় তারা বাবা, ছেলে ও পরিবারের লোকজন আমাদের উপর এলোপাতারি ভাবে হামলা করে। আমি হাইমচর থানায় লিখিত অভিযোগ করার প্রশ্তুতি নিচ্ছি।
ট্যাগস :

বিশাল মিছিল নিয়ে রাজপথে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

হাইমচরে পরাজীত চেয়ারম্যান প্রার্থীকে শান্তনা দিতে গিয়ে হামলার শিকার ইউপি সদস্য

আপডেট সময় : ০৪:৩৩:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২২
হাইমচর প্রতিনিধি : নৌকা প্রতীকের পরাজীত চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান গাজীকে শান্তনা দিতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন  ইউপি সদস্য। আহতদের মধ্যে এক ইউপি সদস্য ও তার ছেলে গুরুতর আহত অবস্থায় হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়েছেন।
জানাজায়, গত ২৯ ডিসেম্বর শান্তিপূর্ন পরিবেশে ইভিএমের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় হাইমচর উপজেলার ১ নং গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। ঐ নির্বাচনে ১০৭ ভোটের ব্যবধানে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাছে পরাজীত হন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান গাজী। নির্বাচনে পুরাতন ৮ ইউপি সদস্য পুনরায় নির্বাচিত হন। নির্বাচনের পরের দিন ৩০ ডিসেম্বর বেসরকারি ভাবে ফলাফল ঘোষনার পর নির্বাচিত ৮ ইউপি সদস্য পরাজীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান গাজীকে শান্তনা দিতে তার বাড়িতে যান। বাড়িতে যাওয়ার পর  তিনি পরাজীত হয়ে মেম্বাররা বিজয়ী হলেন কেন।
এ বিষয় নিয়ে ইউপি সদস্যদের সাথে তার কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাবিবুর রহমান গাজীর নেতৃত্বে তার ছেলেরা ও পরিবারের লোকজনসহ তাদের উপর হামলা করেন। এতে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত দেলোয়ার হোসেন গাজী গুরুতর আহত হয়।
আহত ইউপি সদস্য দেলোয়ার হোসেন জানান, আমাদের বিজয়ের ফলাফল নিতে এসে সকল সদস্য একত্রিত হই। আমি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সভাপতি হাবিবুর রহমান গাজীকে শান্তনা দিতে সকলকে সাথে নিয়ে তার বাড়িতে যাই। আমরা যাওয়ার পর তিনি তার ছেলে ও লোকজনকে হুকুম দেন আমাদেরকে মারার জন্য।
এমন সময় তারা বাবা, ছেলে ও পরিবারের লোকজন আমাদের উপর এলোপাতারি ভাবে হামলা করে। আমি হাইমচর থানায় লিখিত অভিযোগ করার প্রশ্তুতি নিচ্ছি।