ঢাকা ০৬:২০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সদস্য পদে ভোটাদের কাছে ইকবাল হোসেন পলাশ

সাইদ হোসেন অপু চৌধুরী : একজন ব্যক্তি সমাজের বিভিন্নভাবে ভূমিকা রাখতে পারেন, সমাজ সেবা তিনিই করেন যিনি সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সাথে মিশেন, সমাজের আধুনিকায়নে গুরুত্ব রাখেন এবং সবার সুখ দুঃখ ভাগ করে নেন।

Model Hospital

আর এমনই ব্যক্তিত্ব শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি’র আস্তভাজন ও একান্ত স্নেহধন্য, চাঁদপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের সদস্য ইঞ্জি. ইকবাল হোসেন পলাশ পাটওয়ারী।

তিনি স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে সমাজ ও চাঁদপুর সদর উপজেলার উন্নয়নে কাজ করতে চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ( চাঁদপুর সদর) ১নং ওয়ার্ড থেকে নির্বাচন করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

সদস্য পদপ্রার্থী ইকবাল হোসেন পলাশ পাটওয়ারী বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে, জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে ও শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি ও তাঁর ভাই বিশিষ্ট চিকিৎসক ও রাজনীতিবিদ ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু ভাইয়ের স্নেহে স্বাধীনতা স্বপক্ষে দলের রাজনীতি করছি। দলের সকল আন্দোলন সংগ্রাম ও কর্মসূচীতে সব সময় কাজ করে আসছি। আপনারা সব সময় আমাকে কাছে পেয়েছেন। আমি আমার সাধ্য অনুসারে দলের পাশাপাশি জণকল্যাণে কাজ করে আসছি। সব সময় চেষ্ঠা করেছি মানুষের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিতে। আমি আসন্ন চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য নির্বাচিত হলে শাসক নয় জনগনের সেবক হয়ে কাজ করবো।

তিনি আরও বলেন, এ এলাকার কৃতি সন্তান চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপিসহ ভোটারদের সমর্থন ও দোয়া নিয়ে আমি জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাই। আমি নির্বাচিত হলে জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতামূলক গ্রামীণ অবকাঠামোগত উন্নয়নে কাজ করবো। আমি আমার সাধ্য অনুযায়ী ভবিষ্যতে জনগণের সেবক হিসেবে পাশে থেকে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো ইনশাআল্লাহ।

জানা যায়, তার বাড়ী চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫নং রামপুর ইউনিয়নের। পেশায় একজন ইঞ্জিনিয়ার। রাজনীতিতে তার পরিচিতির ভান্ডার বেশ সমৃদ্ধ। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের রাজনীতি করার সময়ই তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যে ফুুটে উঠে জনসাধারণের মাঝে। তাই রাজনৈতিক অঙ্গনে সক্রিয় কর্মী হিসেবে তার একটি পরিচিত বিরাজমান। নির্বাচনী এলাকায় তার একটা গ্রহন যোগ্যতা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি সকলের দোয়া ও সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

চাঁদপুর জেলার সর্বসাধারণ মনে করেন তাকে চাঁদপুর জেলা পরিষদের সদস্য পদে দলীয় মনোনয়ন দিলে তার এই সুন্দর মন-মানসিকতা ও কাজের মাধ্যমেই মানবতা যুগ, যুগ ধরে বেঁচে থাকবে।

উল্লেখ্য: আগামী ১৭ অক্টোবর সারা দেশের ন্যায় চাঁদপুরেও জেলা পরিষদের ভোট অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশনারের কাছে প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল দিয়েছেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

উদয়ন প্রিমিয়ার লীগ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পূর্ণ

সদস্য পদে ভোটাদের কাছে ইকবাল হোসেন পলাশ

আপডেট সময় : ০২:৪৯:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাইদ হোসেন অপু চৌধুরী : একজন ব্যক্তি সমাজের বিভিন্নভাবে ভূমিকা রাখতে পারেন, সমাজ সেবা তিনিই করেন যিনি সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সাথে মিশেন, সমাজের আধুনিকায়নে গুরুত্ব রাখেন এবং সবার সুখ দুঃখ ভাগ করে নেন।

Model Hospital

আর এমনই ব্যক্তিত্ব শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি’র আস্তভাজন ও একান্ত স্নেহধন্য, চাঁদপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের সদস্য ইঞ্জি. ইকবাল হোসেন পলাশ পাটওয়ারী।

তিনি স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে সমাজ ও চাঁদপুর সদর উপজেলার উন্নয়নে কাজ করতে চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ( চাঁদপুর সদর) ১নং ওয়ার্ড থেকে নির্বাচন করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

সদস্য পদপ্রার্থী ইকবাল হোসেন পলাশ পাটওয়ারী বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে, জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে ও শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি ও তাঁর ভাই বিশিষ্ট চিকিৎসক ও রাজনীতিবিদ ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু ভাইয়ের স্নেহে স্বাধীনতা স্বপক্ষে দলের রাজনীতি করছি। দলের সকল আন্দোলন সংগ্রাম ও কর্মসূচীতে সব সময় কাজ করে আসছি। আপনারা সব সময় আমাকে কাছে পেয়েছেন। আমি আমার সাধ্য অনুসারে দলের পাশাপাশি জণকল্যাণে কাজ করে আসছি। সব সময় চেষ্ঠা করেছি মানুষের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিতে। আমি আসন্ন চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য নির্বাচিত হলে শাসক নয় জনগনের সেবক হয়ে কাজ করবো।

তিনি আরও বলেন, এ এলাকার কৃতি সন্তান চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপিসহ ভোটারদের সমর্থন ও দোয়া নিয়ে আমি জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাই। আমি নির্বাচিত হলে জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতামূলক গ্রামীণ অবকাঠামোগত উন্নয়নে কাজ করবো। আমি আমার সাধ্য অনুযায়ী ভবিষ্যতে জনগণের সেবক হিসেবে পাশে থেকে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো ইনশাআল্লাহ।

জানা যায়, তার বাড়ী চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫নং রামপুর ইউনিয়নের। পেশায় একজন ইঞ্জিনিয়ার। রাজনীতিতে তার পরিচিতির ভান্ডার বেশ সমৃদ্ধ। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের রাজনীতি করার সময়ই তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যে ফুুটে উঠে জনসাধারণের মাঝে। তাই রাজনৈতিক অঙ্গনে সক্রিয় কর্মী হিসেবে তার একটি পরিচিত বিরাজমান। নির্বাচনী এলাকায় তার একটা গ্রহন যোগ্যতা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি সকলের দোয়া ও সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

চাঁদপুর জেলার সর্বসাধারণ মনে করেন তাকে চাঁদপুর জেলা পরিষদের সদস্য পদে দলীয় মনোনয়ন দিলে তার এই সুন্দর মন-মানসিকতা ও কাজের মাধ্যমেই মানবতা যুগ, যুগ ধরে বেঁচে থাকবে।

উল্লেখ্য: আগামী ১৭ অক্টোবর সারা দেশের ন্যায় চাঁদপুরেও জেলা পরিষদের ভোট অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশনারের কাছে প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল দিয়েছেন।